শুক্রবার, ২০ জুলাই ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ২০ মার্চ, ২০১৮, ০৮:১৩:২৯

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা: ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। তলাবিহীন ঝুঁড়ির বদনাম ঘুচিয়ে তার নেতৃত্বে দেশ এখন বিশ্বে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত হয়েছে’ বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জানিয়েছেন, আগামী সেপ্টেম্বরেই ৫শ’ বেডের বিশেষায়িত ‘শেখ হাসিনা বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট’-এর যাত্রা শুরু হবে। খবর বাসস

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্ম মাসেই তার নামে বিশ্বের সবচেয়ে বড় বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট চালু করা হবে। এখানে আগুনে পোড়া রোগীদের অত্যাধুনিক চিকিৎসা সেবা দেয়া হবে।’

বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ায় দেশব্যাপী ২০ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত বিশেষ স্বাস্থ্যসেবা সপ্তাহ উদ্বোধনকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

দেশের প্রতিটি নাগরিকের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে সরকার সব ধরনের উদ্যোগ নিচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘স্বাস্থ্যসেবা পাওয়া প্রতিটি নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার। এই অধিকার নিশ্চিত করতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। আমরা প্রতিটি নাগরিকের ঘরে ঘরে স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছি।’

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, তৃণমূলের গরিব মানুষের স্বাস্থ্যসেবা সঠিকভাবে নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকার ইতোমধ্যে ৬ হাজার ডাক্তার নিয়োগ দিয়েছে। জাতীয় নির্বাচনের আগে পর্যায়ক্রমে আরো ১০ হাজার ডাক্তার নিয়োগ দেয়া হবে। নতুন নিয়োগ পাওয়া ডাক্তারদের কমপক্ষে ৩ বছর গ্রামে থেকে তৃণমূলের মানুষদের সেবা দিতে হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের ইতিহাসে বর্তমান সরকার প্রথমবারের মতো একসাথে ১০ হাজার নার্স নিয়োগ দিয়েছে। তারা এখন দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে সেবা দিচ্ছে। দেশে এখন আর নার্স সংকট নেই।

হাসপাতালগুলোর পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার ব্যাপারে কোন আপোষ করা যাবে না উল্লেখ করে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, সরকার পর্যায়ক্রমে স্বাস্থ্যখাতে আরো ৪০ হাজার তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী নিয়োগ দেবে। শিগগিরই এই প্রক্রিয়া শুরু করা হবে বলে তিনি জানান।

অতিরিক্ত এ্যাটেনডেন্ট ও দর্শনার্থীর কারণে হাসপাতালে রোগীর সঠিক চিকিৎসা ব্যাহত হয় উল্লেখ করে মন্ত্রী হাসপাতালগুলোতে রোগীর সাথে ১ বা ২ জনের বেশি এ্যাটেনডেন্ট থাকার অনুমতি না দেয়ার বিষয়ে কড়াকড়ি আরোপ করতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে মন্ত্রী নির্দেশ দেন। রোগীর কষ্ট হয় এমন কিছু না করার জন্য তিনি সকলের প্রতি আহবান জানান।

ঢাকা মেডিকেল কলেজের উন্নয়নে একটি বড় প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই প্রকল্পের কাজ শেষ হলে এই মেডিকেলের চেহারাই পাল্টে যাবে। শিগগিরই এই উন্নয়নমূলক কাজ শুরু হবে।

তিনি বলেন, এই অগ্নিঝরা মার্চে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্ম হয়েছে। এই মাসেই ৭ মার্চের ভাষণের মাধ্যমে তিনি বাঙালি জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে মুক্তিযুদ্ধের জন্য উদ্বুদ্ধ করেছেন। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দেশ স্বাধীনতা লাভ করেছে। এখন তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের অর্থনৈতিক মুক্তি সংগ্রাম এগিয়ে নিচ্ছেন।

ঢাকা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. খান আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ সচিব ফয়েজ আহম্মদ,স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ঢাকা মেডিকেলের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসির উদ্দিন।

আজকের প্রশ্ন

খুলনা সিটি নির্বাচনের ভোটকে ‘প্রহসন’ বলেছেন বিএনপি ও বামপন্থিরা। আপনি কি একমত?