বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ১১ মার্চ, ২০১৮, ১১:৫৬:৫০

প্রথম স্বামীকে তালাক না দিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে! অতঃপর...

প্রথম স্বামীকে তালাক না দিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে! অতঃপর...

ঢাকা: রাজশাহী নগরীর শ্রীরামপুরে লাইলী বেগম নামে এক গৃহবধূকে বিষ প্রয়োগ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে ‘কথিত স্বামী’ শরিফুল ইসলামের বিরুদ্ধে।

রবিবার (১১ মার্চ) বেলা ১১টার দিকে রাজশাহী প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লাইলী বেগমের প্রথম পক্ষের স্বামীর আত্মীয়-স্বজনরা জানান, টাকার লোভে প্রথমপক্ষের স্বামী থাকা সত্ত্বেও লাইলী বেগমকে বিয়ে করে ‘কথিত স্বামী’ শরিফুল ইসলাম।

পরবর্তীতে অবশ্য টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় প্রচণ্ড নির্যাতন চালিয়ে মুখে বিষ দিয়ে লাইলী কে হত্যা করে ওই ‘কথিত স্বামী’ শরিফুল।

ওই সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, নিহত লাইলী বেগমের ছেলে রাহিন (১৪), মেয়ে লিলি (৯), মামী শাশুড়ি রাশেদা বেগম, ভাবি রেহেনা বেগম ও ননদ আমিনা খাতুন।

এদিকে, লিখিত বক্তব্যে লাইলী বেগমের প্রথমপক্ষের স্বামীর বড় ভাইয়ের স্ত্রী তসলিমা বেগম বলেন, লাইলী বেগম শরিফুলের দ্বিতীয় স্ত্রী এটা কেউ জানতেন না। কারণ প্রথম স্বামী মজিবুর রহমানকে লাইলী বেগম কিংবা মজিবুর রহমান কেউ তালাক দেয়নি।

তসলিমা বেগম আরো বলেন, লাইলী বেগম শাড়ি কাপড়ের ব্যবসার করে কিছু অর্থ উপার্জন করলে শরিফুল ইসলামের কুনজর পড়ে সে। একপর্যায়ে তালাক ছাড়াই লাইলী বেগমের বাড়িতে থাকা শুরু করে। এ সময় দীর্ঘ ৭ বছর প্রথম স্বামীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে অবৈধভাবে বসবাস করে। এর মধ্যে লাইলীর টাকা-পয়সা দিয়ে সে কোর্ট এলাকায় কাপড়ের দোকান দেয়। এছাড়া অবৈধভাবে মাদক চোরাকারবারের মাধ্যমে শরিফুল বিপুল অর্থ অর্জন করেছে। এরপরও সে লাইলীর সম্পূর্ণ টাকা লোপাটের জন্য বিভিন্ন সময় চাপ প্রয়োগ করে আসছিল।

কোনো ভাবেই কিছু না হলে একপর্যায়ে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে নির্যাতন চালিয়ে মুখে বিষ দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে শরিফুল। পরে ৩ থেকে ৪ দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে গত ১০ ফেব্রুয়ারি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান লাইলী বেগম।

এ ঘটনার পর রাজপাড়া থানায় অভিযোগ দিলেও মেডিকেল সার্টিফিকেট না থাকায় ময়নাতদন্ত করেনি। বরঞ্চ মামলাটি ভিন্নখাতে প্রভাবিত করতে থানা মামলা নিতে তালবাহানা করছে।

তবে লাইলী বেগমের ‘কথিত দ্বিতীয় স্বামী’ শরিফুল ইসলামের ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো কথা বা মন্তব্য করতে রাজি হননি।

এই বিভাগের আরও খবর

  বাপেক্স কর্মকর্তাদের দুর্নীতি: চেক জালিয়াতি ও বেনামি কোম্পানির নামে অর্থ আত্মসাৎ

  ধর্ষণে গর্ভবতী প্রবাসীর স্ত্রী, পরে সন্তান প্রসব

  ধর্ষণে গর্ভবতী প্রবাসীর স্ত্রী, পরে সন্তান প্রসব

  ডিবি পরিচয়ে তুলে নিয়ে একের পর এক গুপ্তহত্যা!

  প্ররবাসীর স্ত্রীর সাথে আপত্তিকর অবস্থায় ছাত্রলীগ নেতা ! গণধোলাই

  'জীবন বাঁচাতে কোটি টাকার জমি লিখে দিতে হয়েছে'

  গভীর রাতে সিঁধ কেটে গৃহবধূকে গণধর্ষণ, স্বামী বাঁধা গাছে অত:পর........

  এসপি মীজানের কয়েক শ’ বিঘা সম্পত্তি, ব্যাংকে ১০ কোটি টাকা : অঢেল সম্পদের রহস্য উদঘাটন

  স্ত্রীকে গলাটিপে হত্যার অভিযোগ পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে

  দুলাভাইকে মারধর করে যুবতীকে গণধর্ষণ

  হোটেলে আপত্তিকর অবস্থায় ১৪১ নারী-পুরুষ আটক

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি জাতিসংঘে যাওয়ায় সরকার আতঙ্কিত - ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের এ বক্তব্য সমর্থন করেন কি?