রবিবার, ২৭ মে ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ১৬ মে, ২০১৮, ০১:২৩:৫৫

মেয়েদের সাত কিসিমের গোপন প্রেম!

মেয়েদের সাত কিসিমের গোপন প্রেম!

নিউজ ডেস্ক: ভালো লাগা বা প্রেম আমাদের জীবনের একটা অংশ। মনের গভীরে কোনো একজন বিশেষ ব্যক্তির জন্য আমাদের আলাদা জায়গা থাকে। ছেলেরা এই কথা প্রকাশ করলেও মেয়েদের ভালো লাগার কথা গোপনই থেকে যায়। মেয়েরা এসব ভালো লাগার মানুষের কাছে তেমন কোনো আশা করে না, কিন্তু তাদের উপস্থিতিতে তারা বেশ আনন্দ অনুভব করে। এদের কথা তারা অবশ্য কারো কাছে বলতে চায় না, এমনকি এটাও চায় না যে যাকে সে পছন্দ করে সেও তার মনের কথা জানুক। এটা এক রকম গোপন প্রেমই বলা যায়!
 
মেয়েরা কোন কোন মানুষের প্রেমে পড়ে, গোপনে, তার একটি তালিকা:
 
অপরিচিত মানুষ: মেয়েটি যখনই বাইরে যায় তখনই ছেলেটিকে দেখে। বাসার সামনের রাস্তায়, সুপারশপে, এমনকি মায়ের সঙ্গে শপিংয়ে যাওয়ার পথেও তার সঙ্গে দেখা। এই অপরিচিত মানুষটির জন্যই সে একেক দিন একেক পোশাক পরে বের হয়, ঘরের বাইরে যাওয়ার আগে চুলটা ঠিক করে নেয়। অথচ এই মানুষটির সঙ্গে তার কোনোদিনও হয়তো কথা হবে না। তবুও এই অপরিচিত মানুষটির প্রতি তার মনে অন্যরকম ভালো লাগা তৈরি হয়, যা চিরদিন গোপনই থাকে।
 
অফিসের বস: আপনার ভাগ্য খুবই ভালো যদি আপনার বস ভালো হয়। আর যদি সে দেখতে সুন্দর, সবসময় হাস্যোজ্জ্বল ও স্মার্ট হয় তাহলে তো আর কথাই নেই। এমন মানুষের প্রেমে না পড়ে থাকা যায়? বসের জন্যই মেয়েটি অফিসের কাজে বেশ মনোযোগী থাকে, যাতে সে তার কাছ থেকে প্রশংসা পায়। সবসময় তার নজরে থাকার জন্যই সে এমন আচরণ করে। হয়তো এই গোপন প্রেমের কথা বসের কান পর্যন্ত কখনো পৌঁছাবেই না। তবুও মেয়েটি গোপনে তাকে ভালোবেসে যায়। এই অনুভূতিতে সে অন্যরকম আনন্দ অনুভব করে।
 
বড় ভাইয়ের বন্ধু: বড় ভাইয়ের বন্ধুর প্রেমে অনেক মেয়েই পড়ে। সুন্দর কথা, চেহারা আর বন্ধুসুলভ আচরণের কারণে মেয়েরা তাদের প্রেমে হাবুডুবু খায়। কখন ভাইয়ের সঙ্গে সে বাসায় আসবে, কখন পাড়ার মোড়ে আড্ডা দেয়ার সময় তার সঙ্গে দেখা হবে, এমন ভাবনাতেই অনেক মেয়ে বিভোর থাকে। এই ভাবনা ও অপেক্ষা তখন বেশ মধুর মনে হয়। কিন্তু অনেকেই আবার এই গোপন ভালোবাসার কারণে ঝামেলাতেও পড়ে। গোপন ভালোবাসা প্রকাশ্যে এলে বন্ধুদের মধ্যে সম্পর্ক নষ্ট হওয়ার ঝুঁকিও থাকে।
 
শিক্ষক: বাসার বাইরে আমরা স্কুল, কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে বেশি সময় কাটাই। যেখানে শিক্ষকরাই আমাদের বড় বন্ধু হয়ে যায়। কোনো বিশেষ শিক্ষকের ক্লাস নে
য়া বা তার পড়ানোর ধরন, কথা বলার ভঙ্গি মেয়েদের দুর্বল করে ফেলে। মেয়েরা সহজেই এসব শিক্ষকের প্রেমে পড়ে। হয় তো দু-একজন বন্ধু ছাড়া এই প্রেমের কথা আর কেউই জানে না। মজার বিষয়, অনেক বছর পার হয়ে যাওয়ার পর হঠাৎ কোনো পুরনো বন্ধুর সঙ্গে দেখা হওয়ার পর সেই শিক্ষকের কথা মেয়েরা জিজ্ঞেস করে। তখন তার কথা শুনে আনন্দিত হওয়া মাত্রই বলে দেয়, সেই সময়কার ভালো লাগাটা কতটা সুখকর ছিল।
 
বান্ধবীর প্রেমিক: বন্ধুরা যখন একসঙ্গে হয় তখন একজন আরেকজনের প্রেমিককে নিয়ে নানা কথাই বলে। বিশেষ করে ভালো গুণগুলো বেশি প্রকাশ করে। আর এই ভালো ভালো কথা শুনে মেয়েটি তার বান্ধবীর প্রেমিকেরই প্রেমে পড়ে যায়! কিন্তু ভুলেও এ কথা সে তার বান্ধবীকে বলে না। আবার অনেক সময় হিংসার কারণে সে তার বান্ধবীর সাথে সম্পর্কও নষ্ট করতে চায়।
 
দূর সম্পর্কের ভাই: দূর সম্পর্কের মামাতো ভাই, খালাতো ভাই বা চাচাতো ভাইয়ের সঙ্গে খুব একটা দেখা হয় না। পরিবারের কোনো অনুষ্ঠানেই তাদের সঙ্গে দেখা হয়। অনেক দিন পরপর দেখা হওয়ার কারণে তাকে নতুন মনে হয়। নতুনভাবে তাকে চেনার ইচ্ছে জাগে। কিন্তু পরিবারের ভয়ে এই কথা সে কাউকে বলতে পারে না।
 
যাত্রাপথের সঙ্গী: বাস, ট্রেন অথবা প্লেনে কোথাও যাওয়ার সময় আপনার পাশে হয়তো কোনো স্মার্ট ছেলে বসল। যাকে দেখার সঙ্গে সঙ্গেই আপনি একটু নড়েচড়ে বসলেন। হয় তো যাত্রাপথে তার সঙ্গে আপনার দু-একটা কথাও হয়েছে। এধরনের ছেলেরও প্রেমে পড়ে মেয়েরা। তবে তা খুবই কমই প্র্রকাশ পায়।

আজকের প্রশ্ন

খুলনা সিটি নির্বাচনের ভোটকে ‘প্রহসন’ বলেছেন বিএনপি ও বামপন্থিরা। আপনি কি একমত?