সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ০৫:২৮:৪৮

বেহেশতে কি কি খাবার পরিবেশন করা হবে?

বেহেশতে কি কি খাবার পরিবেশন করা হবে?

ঢাকা : বিনয়ী ব্যক্তিকে আল্লাহ পছন্দ করে। অহংকারীকে আল্লাহ অপছন্দ করেন। শয়তান অহংকার করেছিল তাই আল্লাহতাকে জান্নাত থেকে বের করে দিয়েছেন। মানুষ আল্লাহর বান্দা, তাই বান্দার সৌন্দর্য ও কৃতিত্ব এটাই যে তার প্রতিটি কর্মে দাসত্ব ও বিনয় ফুটে উঠবে। বিনয়-নম্রতা দাসত্বেরই পরিচায়ক। আল্লাহপাক ইরশাদ করেছেন, ‘রহমানের বান্দা তো তারাই, যারা পৃথিবীতে অবনত মস্তকে (নম্রভাবে) চলে।’ -সূরা ফুরকান : ৬৩

পার্থিব জীবনে যে সকল মুসলিমগণ আল্লাহর আদেশ নিষেধ মেনে চলবেন এবং পরকালীন হিসাবে যার গুনাহর চেয়ে পুণ্যের পাল্লা ভারি হবে ও আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভ করবে তাদেরকে মহাল আল্লাহ বেহেশত নসীব করবেন। আল্লাহ মানুষের মনের ইচ্ছেগুলো দিয়েই সাজিয়েছেন জান্নাত! যা চিরস্থায়ী। যার কোনও ক্ষয় বা ধ্বংস নেই। তার নায-নেয়ামত, ভোগ-বিলাস ও সকল মঞ্জিল সকল জান্নাতির জন্যে প্রতিদান স্বরূপ।

আল্লাহ  জান্নাতিদের আহ্বান করবেন, সম্মানিত মেহমানদের ন্যায় তারা সামনে অগ্রসর হবে এবং আল্লাহর দরবারে উপস্থিত হবে।

“হে আমার বান্দাগণ, আজ তোমাদের কোন ভয় নাই এবং তোমরা চিন্তিতও হবে না।” [যুখরুফ ৬৮]

তারা দুনিয়ার ন্যায় সেখানেও তাদের নিজ নিজ বাড়ি-ঘর চিনবে।

“অতঃপর তিনি তাদেরকে জান্নাতে প্রবেশ করাবেন, যার পরিচয় তিনি তাদেরকে ইতোপূর্বে দিয়েছেন।” [মুহাম্মদ ৬]

সম্মানিত ফেরেশতাগণ তাদেরকে নিরাপদ আগমন ও উত্তম গৃহের সুসংবাদ দিয়ে অভ্যর্থনা জানাবে।

“যারা তাদের রবকে ভয় করেছে, তাদেরকে দলে দলে জান্নাতে নিয়ে যাওয়া হবে। অতঃপর যখন তারা তাতে আগমন করবে ও দরজাসমূহ খুলে দেয়া হবে, তখন তাদেরকে জান্নাতের রক্ষীরা বলবে : ‘তোমাদের প্রতি সালাম, তোমরা সুখি, অতএব তোমরা এতে স্থায়ীভাবে প্রবেশ কর।” [জুমার ৭৩]

জান্নাতিরা তখন বলবেন: “সমস্ত প্রসংশা সে আল্লাহর, যিনি আমাদেরকে এর জন্য পথ দেখিয়েছেন। যদি আল্লাহ আমাদের পথ না দেখাতেন, তবে আমরা পথ পেতাম না। আমাদের কাছে আমাদের রবের রাসূলগণ সত্য নিয়ে এসেছেন।”

অতঃপর ঘোষণা দেয়া হবে, “এটাই তোমাদের জান্নাত, তোমরা এর মালিক হয়েছ, তোমরা যে আমল করতে, তার বিনিময়ে।” [আরাফ ৪৩]

ধর্মপ্রাণ অনেক মুসল্লির মনের কৌতুহল জাগ্রত হতে পারে- জান্নাতের পরিবেশ কিংবা সেখানকার খাবারদাবার অথবা পোশাকআশাক কেমন হবে? সেখানে কি দুনিয়ার মতোই সব ব্যবস্থা থাকবে? নাকি নতুন আরও মোহনীয় দৃষ্টিনন্দন সুন্দর কিছু থাকবে জান্নাতিদের জন্য?
 
জান্নাতে কি ধরনের খাবারের ব্যবস্থা থাকবে? জান্নাতিরা জান্নাতে প্রবেশ করার
পর সর্বপ্রথম তাদেরকে কী খাবার পরিবেশন করা হবে?

এবার এক ইহুদি পাদ্রী রাসূলুল্লাহকে (সাঃ) ঠিক এমন প্রশ্নই করলেন।

উত্তরে ওই ইহুদি পাদ্রীকে রাসূলুল্লাহ বললেন- “জান্নাতিদের মাছের কলিজার পাশের যে মাংস থাক তা দিয়েই পরিবেশন করা হবে।”

এর পর ইহুদি আবারও জিজ্ঞেস করল, ‘এর পর কী পরিবেশন করা হবে?’

রাসূলুল্লাহ সল্লল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, ‘এরপর জান্নাতিদের জন্য জান্নাতে পালিত গরুর গোশত পরিবেশন করা হবে।’

এরপর ইহুদী জিজ্ঞেস করল, ‘খাওয়ার পর পানীয় হিসেবে কী কী পরিবেশন করা হবে?’

রাসূলুল্লাহ এবার বললেন, “সালসাবীল নামক ঝর্ণার পানি পরিবেশন করা হবে জান্নাতিদের।” (সহীহ মুসলিম- কিতাবুল হায়েজ)

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি জাতিসংঘে যাওয়ায় সরকার আতঙ্কিত - ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের এ বক্তব্য সমর্থন করেন কি?