সোমবার, ২১ মে ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭, ০৭:৫৮:৪৮

সাধক অনিলের তিরোধান উৎসব, দেশে বিদেশের লাখ ভক্তের সমাগম

সাধক অনিলের তিরোধান উৎসব, দেশে বিদেশের লাখ ভক্তের সমাগম

ঢাকা: ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলার আড়ালিয়া চাদঁপুর ও শম্ভপুর গ্রামে শুরু হয়েছে উপমহাদেশের প্রখ্যাত

সাধক অনিল বাবাজীর তিরোধান উৎসব। পূর্ন লাভের আশায় দেশ বিদেশ থেকে আসা হাজারো ভক্তের এ এক মহামিলন উৎসব। ৫দিন ব্যাপি দুটি মন্দিরের পৃথক মহোৎসবে হাজারো ভক্তের সমাগমে বৃন্দাবন এলাকাজুড়ে তিল ধারনের স্থান ছিল না।

ভক্তদের পর্ন দর্শনে তৈরী করা হয়েছে নব বৃন্দাবন। এখানে বিভিন্ন দেব দেবতার অবয়ব স্থাপন করা হয়েছে। খালি পায়ে মালা জপ বৃত্তের ধাপ পার হচ্ছে কেউ কেউ। দীর্ঘ পথব্যাপী আলোকসজ্জ্বা করে সাজানো হয়েছে।

এখানে তিরোধান উৎসবের পাশাপাশি মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলার স্থানে প্রায় শতাধিকেরও বেশি স্টল বসেছে। স্টল গুলোতে পাওয়া যাচ্ছে ঘর বাড়ি সাজানোর জন্য বিভিন্ন ধরনের ফার্নিচার সামগ্রী, ছোট বড় সকলের পোশাক, কসমেটিকস সামগ্রী, দা, বটি, কুড়াল, টিভি, ফ্রিজ, কম্বল ইত্যাদি। এছাড়াও রয়েছে ঝালমুড়ি, ফুচকা, চটপটির দোকান, তুলনা মূলক ভাবে লক্ষ্য করা যায় এসব দোকান গুলোতে মানুষের অত্যাধিক ভীড়। মেলায় কেনাকাটা করার জন্য ধর্ম,বর্ণ 
নির্বিশেষে সকল পেশার মানুষকে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়।

তিরোধান উৎসবে এখানকার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সকল প্রকার নাসকতা ঠেকাতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

জানা যায়, আড়ালিয়া গ্রামের মন্দির ও আশ্রম গড়ে ওঠেছে শ্রী শ্রী অচ্যুাতানন্দ ব্রক্ষ্মচারী অনিল বাবাজীর সমাধিকে কেন্দ্র করে। অপরদিকে শম্ভুপুর স্বরূপ আশ্রম গড়ে ওঠেছে জন্মস্থানকে ঘিরে।

আড়ালিয়া মন্দির কমিটির সভাপতি নিরাঞ্জন দে সহ কমিটির অন্যান্য সদস্যরা জানায়, আমাদের এখানে ভক্তদের নিরাপত্তার সুবিধার্থে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে এখানকার গুরুত্বপূর্ণ স্থান গুলো পরিচালনা করা হচ্ছে। আমাদের এখানে প্রতিবছর হাজারো ভক্তের সমাগম হয়। ভক্তদের আর্থিক সহযোগীতায় এ অনুষ্ঠান টি চালিত হচ্ছে।

মন্দির কমিটি একানকার সমস্যা তুলে ধরে জানায়, দূর্ভাগ্যের বিষয় মন্দিরের সামনের রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরে জরাজীর্ণ বেহাল অবস্থায় রয়েছে। যার কারনে এ রাস্তা দিয়ে চলাফেরা করতে ভক্তদের অনেক দূর্ভোগ পোহাতে হয়। আমরা এ বিষয়টি জনপ্রতিনিধিদের অবহিত করেছি। আমরা আশা করি উপজেলা পরিষদ থেকে আমাদের এ বিষয় টি বিবেচনা করা হবে এজন্য তাদের প্রতি অনুরোধ রইলো।
খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

এই বিভাগের আরও খবর

আজকের প্রশ্ন

খুলনা সিটি নির্বাচনের ভোটকে ‘প্রহসন’ বলেছেন বিএনপি ও বামপন্থিরা। আপনি কি একমত?