বৃহস্পতিবার, ২৪ মে ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১৮ জানুয়ারী, ২০১৮, ০১:৫৮:১৭

‘আরো চোখ নে, তারপরেও রেজাল্ট দে’

‘আরো চোখ নে, তারপরেও রেজাল্ট দে’

ঢাকা : পরীক্ষার ফল প্রকাশের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিভুক্ত সাত কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা নীলক্ষেত মোড় অবরুদ্ধ করে রেখে বিক্ষোভ করছে। এতে সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে শিক্ষার্থীদের এমন অবস্থানের কারণে দুর্ভোগে পড়েছে হাজারো মানুষ।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে শিক্ষার্থীরা নিউমার্কেটের সামনে নীলক্ষেত মোড়ে আসে। এরপর পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী সেখানে গোল হয়ে বসে পড়ে। ফলে সায়েন্স ল্যাবরেটরি থেকে আজিমপুর এবং বিডিআর গেইট থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছ।

শিক্ষার্থীরা জানায়, ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে যারা দ্বিতীয় বর্ষের পরীক্ষা দিয়েছে তাদের ফলাফল প্রকাশ হয়নি ১১ মাসেও। ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে পরীক্ষা শেষ হয়েছে তাদের। কিন্তু ফলাফল কবে দেবে কেউ বলতে পারছে না।

শিক্ষার্থীরা জানুয়ারির মধ্যেই পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করে মার্চের মধ্যে তৃতীয় বর্ষে উত্তীর্ণ হওয়ার ব্যবস্থা করার দাবি জানাচ্ছে।

ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী আল আমিন, ‘আমরা গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে পরীক্ষা দিয়েছি। এরপর আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হই। কিন্তু আজ পর্যন্ত আমাদের ফলাফল প্রকাশ হয়নি। ফলে আমরা তৃতীয় বর্ষে ভর্তি হতে পারছি না। কিন্তু আমাদের সঙ্গে যারা অন্য কলেজে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে তারা তৃতীয় বর্ষ প্রায় শেষ করার পথে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এসে যতক্ষণ তাদের আশ্বাস না দেবেন, ততক্ষণ রাস্তা না ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

এই কর্মসূচি চলাকালে একটি বেসরকারি টেলিভিশনের একজন প্রতিবেদকের সঙ্গে হাতাহাতি হয় ছাত্রদের। ওই প্রতিবেদক লাইভে বলেছিলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে আন্দোলনে নেমেছে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। কিন্তু ভুল তথ্য প্রচার করায় তার সঙ্গে তর্কাতর্কি হয় শিক্ষার্থীদের। পরে তা গড়ায় হাতাহাতিতে।

শিক্ষার্থীরা নীলক্ষেত মোড়ে গোল হয়ে বসে গত জুলাই পরীক্ষার রুটিনের দাবিতে শাহবাগ মোড়ে বিক্ষোভের সময় পুলিশের কাঁদানে গ্যাসের আঘাতে চোখ হারানো সিদ্দিকুরের বিষয়টি তুলে ধরছিল স্লোগানে স্লোগানে।

নীলক্ষেত মোড়ে স্লোগান উঠে, ‘চোখ লাগলে আরো চোখ নে, তারপরেও রেজাল্ট দে’।

গত ফেব্রুয়ারি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তি থেকে সাতটি সরকারি কলেজের ব্যবস্থাপনা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থানান্তর করা হয়। কিন্তু পর্যাপ্ত প্রস্তুতির আগেই এই পরিবর্তনে তৈরি হয় নানা জটিলতা। ওই কলেজগুলোতে পরীক্ষা, ফলাফল সবই আটকে যায়। পরীক্ষা নেয়ার দাবিতে গত ২০ জুলাই শাহবাগ মোড়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সময় তাদেরকে হটাতে পুলিশের কাঁদানে গ্যাসের সেল আঘাত হানে সরকারি তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী সিদ্দিকুর রহমানের চোখে। পরে দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলেন তিনি।

আবার এই সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে সম্প্রতি আন্দোলনে নেমেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও। এই আন্দোলনে বাধা দেয়ার ঘটনায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের সঙ্গেও বিবাদে জড়িয়ে হুমকিতে আছে সাধারণ ছাত্ররা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি সাতটি কলেজ হচ্ছে -ঢাকা কলেজ, কবি নজরুল সরকারি কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি তিতুমীর কলেজ, সরকারি বাঙলা কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ এবং সরকারি সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ।

 

আজকের প্রশ্ন

খুলনা সিটি নির্বাচনের ভোটকে ‘প্রহসন’ বলেছেন বিএনপি ও বামপন্থিরা। আপনি কি একমত?