শনিবার, ২০ জানুয়ারী ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ০৮ জানুয়ারী, ২০১৮, ১২:৩৬:৩৩

৫ ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা ১২ জানুয়ারি

৫ ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা ১২ জানুয়ারি

ঢাকা : রূপালী, সোনালী ও জনতা বাদে রাষ্ট্রায়ত্ত ৫টি ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা ১২ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। রবিবার রাতে এ তথ্য জানিয়েছেন ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটির জিএম মোশাররফ হোসেন খান।

তিনি বলেন, ২ লাখ ১৩ হাজার ৫০০ পরীক্ষার্থী প্রবেশপত্র ডাউনলোড করেছেন। তারা সবাই পরীক্ষায় অংশ নেবেন। এই পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে সোনালী, রূপালী এবং জনতা ব্যাংক বাদে বাকি প্রতিষ্ঠানগুলোর নিয়োগ প্রক্রিয়া যথা নিয়মে চলবে।

এর আগে সোনালী, রূপালী ও জনতা ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার, অফিসার ও ক্যাশ অফিসার পদে নিয়োগ পরীক্ষার কার্যক্রম স্থগিত করে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে নিয়োগ পরীক্ষা কেন বাতিল করা হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়।

এ বিষয়ে এক রিটের শুনানি নিয়ে রবিবার হাইকোর্টের বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট রাশিদুল হক খোকন। তার সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট তানজিম আল ইসলাম। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাতার হোসেন সাজু। আইনজীবীরা জানিয়েছেন, এর ফলে আগামী ১২ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় ওই তিন ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত থাকবে।

২০১৬ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি সোনালী ব্যাংকের কর্মকর্তা ও ক্যাশ কর্মকর্তার ৭০১টি শূন্য পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়।ওই বছরের ২৬ জুলাই রূপালী ব্যাংকে ৪২৩টি শূন্য পদে সিনিয়র অফিসার ও ৩ আগস্ট জনতা ব্যাংকের ৭৩৬টি শূন্য পদে অ্যাসিস্ট্যান্ট এক্সিকিউটিভ অফিসার পদের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়।

কিন্তু সেসব পদে নিয়োগ পরীক্ষা না নিয়ে গত বছরের ২৩ আগস্ট বাংলাদেশ ব্যাংক আটটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে কর্মকর্তার (সাধারণ) এক হাজার ৬৬৩টি শূন্য পদের জন্য সমন্বিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়। এরপর ২৯ আগস্ট তিন হাজার ৪৬৩টি কর্মকর্তা (সাধারণ) পদের জন্য আবার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়।

সবশেষ গত বছরের ৭ সেপ্টেম্বর দুই হাজার ২৪৬টি কর্মকর্তা (ক্যাশ) পদের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। নিয়োগ পরীক্ষার জন্য তারিখ রাখা হয় ১২ জানুয়ারি। কিন্তু ২০১৬ সালের বিজ্ঞপ্তির পর আবেদন করা  প্রার্থীদের পরীক্ষা না নিয়ে ২০১৭ সালে আবার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়ায় বগুড়ার আসাদুজ্জামান, কুমিল্লার আবু বকরসহ ২৮ জন হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। সেখানে ২০১৭ সালের নিয়োগ পরীক্ষার সার্কুলার বাতিল চাওয়া হয়।

 



আজকের প্রশ্ন