রবিবার, ২২ জুলাই ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী, ২০১৮, ০৯:৫৬:৫৬

চোখের সমস্যা কাটাতে জুড়ি নেই লাল চায়ের

চোখের সমস্যা কাটাতে জুড়ি নেই লাল চায়ের

স্বাস্থ্য ডেস্ক : দিনে বেশ কয়েকবার চায়ের কাপে চুমুক দিতেই হয়। মাঝে মধ্যেই ভায়ের পাশাপাশি চলে আসে কফি। তবে সব ছেড়ে লাল চা খান। চিনি ছাড়া লাল চা। এতে করে আপনার চোখ থাকবে ভাল। বাড়বে দৃষ্টিশক্তিও। চোখের সমস্যা কাটাতে লাল চায়ের জুড়ি নেই।

সকালে ঘুম থেকে উঠে চিনি ছাড়া লাল চায়ের কাপে চুমুক দিলেই সারাদিনের জন্য শরীর থাকবে চাঙ্গা। কারণ লাল চা-এ রয়েছে ক্যাফেইন, কার্বোহাইড্রেট, পটাশিয়াম, মিনারেল, ফ্লোরাইড, ম্যাঙ্গানিজ ও পলিফেনল।

এছাড়াও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ট্যানিন, গুয়ানিন, এক্সাথিন, পিউরিনে ভরপুর লাল চা। তবে বেশি পরিমাণে নয়। প্রতিদিন মাত্র ৩ কাপ লাল চা। আর তাতেই ফলাফল আসবে অবিশ্বাস্য। এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

সাম্প্রতিক একটি গবেষণা বলছে, দিনে একবার লাল চা খেলে গ্লুকোমার মতো চোখের রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমে প্রায় ৭৫ শতাংশ। গ্লুকোমা রোগে আক্রান্ত হলে চোখের ভেতরে চাপ বাড়তে শুরু করে। ফলে, অপটিক নার্ভ ক্ষতিগ্রস্ত হতে থাকে। দৃষ্টিশক্তি কমতে শুরু করে। লাল চায়ের সঙ্গে দৃষ্টিশক্তির ভাল-মন্দের সরাসরি যোগ আছে। কারণ, লাল চায়ের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি প্রপাটিজ এবং নিউরো প্রোটেকটিভ কেমিক্যাল চোখ ভাল রাখতে সাহায্য করে।

তবে শুধু চোখই নয়, চিনি ছাড়া লাল চায়ের প্রচুর গুণ। হজমশক্তি বাড়ায় লাল চা। ক্যানসার প্রতিরোধ করে। হার্ট চাঙ্গা রাখে। ব্রেনের ক্ষমতা বাড়ায়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। ওজন কমায় লাল চা। হাড়কে শক্তিশালী করে। স্ট্রেস কমায়, ত্বকের সৌন্দর্য বাড়ায় লাল চা।

এই বিভাগের আরও খবর

  আমি জনগণের সেবক, সংবর্ধনার প্রয়োজন নেই: প্রধানমন্ত্রী

  নির্বাচন নিয়ে এমাজউদ্দীন আহমদের ৪ শর্ত

  প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে অভূতপূর্ব উন্নয়নের জন্যই সংবর্ধনা : কাদের

  নিজের গরু নিয়ে চলার সময় ভারতে মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা

  নাগরিক সমাজের অনেকেই বিক্রি হয়ে গেছেন: সুজন সম্পাদক

  ইমরান খানকে জেতাতে ‘নির্বাচনের ফল সাজাচ্ছে’ সেনাবাহিনী

  গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি হামলায় ৪ ফিলিস্তিনি নিহত

  গণতন্ত্রের মাকে ছাড়া কোনও নির্বাচন হতে দেয়া হবে না

  মিসৌরিতে নৌকাডুবিতে একই পরিবারের ৯ জন নিহত

  ছয় লাখ বাংলাদেশি ‘আধুনিক দাস’

  যুক্তরাজ্যে গত বছর রেকর্ড সংখ্যক মুসলিম বিদ্বেষী হামলার ঘটনা ঘটেছে



আজকের প্রশ্ন