সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ১৪ আগস্ট, ২০১৮, ০৫:০৩:৩৫

এই ঈদে ভ্রমণের প্রস্তুতি

এই ঈদে ভ্রমণের প্রস্তুতি

লাইফস্টাইল ডেস্ক : আর কিছুদিন পরই ঈদুল আযহার ছুটি। অনেকেই এই ছুটিতে ভ্রমণে বা নিজ নিজ গ্রামে যাওয়ার পরিকল্পনা করে ফেলেছেন। এইতো সময় পরিবার পরিজন নিয়ে বেরিয়ে পড়ার।

ঈদের ছুটিতে নিজের আনন্দ ভ্রমণকে আরো সুখকর, স্মৃতিমধুর করার জন্য প্রস্তুতির ব্যাপারে সচেতন হওয়া প্রয়োজন। চলুন তাহলে জেনে নেই এই সময়ের ভ্রমণের প্রস্তুতি।

পরিবহন প্রস্তুতি

ভ্রমণে যাওয়ার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় বিষয়টি হলো পরিবহন। ভ্রমণে অপটু ব্যক্তিরা কিন্তু ভ্রমণের প্রস্তুতি নেয়ার আগেই একধাপ পিছিয়ে আছে। আর যারা পটু তারা তো আগেভাগেই বাস, ট্রেন, লঞ্চ, বিমানের অগ্রিম টিকেট কেটে বসে আছে। ঈদের আগেই কেবল নয়, ঈদের পরও এত বেশি মানুষ আজকাল বেরিয়ে পড়ে শহর ছেড়ে যে মাঝে মাঝে একটা সিট পেয়ে ঘুরতে বেরিয়ে পড়া বেশ কঠিনই হয়। তাই দেরি না করে টিকেট কেটে রাখুন অগ্রিম।

টিকেটের জন্য সাহায্য নিতে পারেন বিভিন্ন অনলাইন ভিত্তিক বিভিন্ন টিকিট কেনাবেচার ওয়েবসাইটে। আর যদি দেশের বাইরে যাওয়ারই প্রস্তুতি থাকে তো যত দ্রুত সম্ভব টিকেট কিনে ফেলুন।

পোশাক প্রস্তুতি

ঈদের সময় ঘুরতে বের হওয়ার সময় অনেকেই যে ভুলটা করে বসেন তা হলো শখের বশে ঈদের জামা-কাপড় সঙ্গে নিয়ে বের হন। যেহেতু ঈদের পোশাকে ভারিক্কি ব্যাপারটা থেকেই যায়, তাই ভ্রমণে আরামদায়ক পোশাকের কথা সেখানেই চলে আসে। তাই যতটা আরামদায়ক পোশাক বাছাই করা যায় নিজের জন্য ততই ভালো। তাতে যদি ঈদের শখের পোশাকটি বাসায় রেখে যেতে হয় তো হোক না। এছাড়া ভ্রমণে আপনার শখের পোশাকটি নষ্ট হয়ে যাবে সেটা নিশ্চয়ই আপনি চাইবেন না!

খাবারের প্রস্তুতি

ঈদের পর ঘোরাঘুরির সময় অন্য যে জরুরি ব্যাপার খেয়াল রাখা উচিত তা হলো খাদ্যাভ্যাস! বেড়াতে যাওয়ার সময় পেটের ব্যথায় ভুগতে না চাইলে ঈদের আগে থেকেই খাওয়া দাওয়ায় সচেতন হোন।  মজাদার বাসার খাবার হোক আর রেস্টুরেন্টের রিচ ফুডই হোক; কিন্তু বছরে ঈদের ছুটি কিন্তু ঘুরে-ফিরে দুইটার বেশি আসবে না! সাবধানতা হিসেবে সঙ্গে রাখুন গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ, ইসবগুলের ভুষিও নিয়ে নিতে পারেন।

এছাড়াও সাধারণ কিছু সমস্যা এড়াতে সঙ্গে রাখুন পেইন কিলার, ফুড পয়জনিংয়ের সাধারণ ওষুধ।

বর্ষার প্রস্তুতি

এবারের ঈদুল আযহা উদযাপিত হবে ভরা বর্ষায়। কিন্তু তাই বলে ভ্রমণপিপাসুরা ঘরে বসে তো আর দিন কাটাবে না! তাই ব্যাগ গোছানোর ক্ষেত্রেও একটু বাড়তি প্রস্তুতি নিন। নিজের জন্য না হলেও ব্যাকপ্যাকটির জন্য রেইনকভার সংগ্রহ করে নিন। রাখতে পারেন ব্যাগে ভরে নেয়ার মতো ছোট ছাতা। আর নিতে পারেন রেইনকোট। বিশেষত বাচ্চাদের জন্য। যত ভালো ব্যাগই হোক, কোনো ব্যাগই আসলে শতভাগ ওয়াটারপ্রুফ বলা যায় না।

সাধের ক্যামেরা, মোবাইল ফোন বাঁচানোর জন্য ও ভেজা কাপড় বহন করার জন্য পলিথিন রাখুন সঙ্গে। জুতা, বুট, হিলের সঙ্গে সঙ্গে স্লিপারও রাখতে পারেন এই বর্ষায়। এছাড়াও মেয়েদের সঙ্গী হতে পারে ওয়াটারপ্রুফ মেকআপ বক্স! সবমিলিয়ে নেতিবাচক আবহাওয়ার জন্য আগেভাগেই প্রস্তুতি নিয়ে রাখাই ভালো, যাতে কোনো অনাকাঙিক্ষত পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে না হয়।

তথ্যগত প্রস্তুতি

অনেকেই ঘুরতে যাওয়ার আগে টেনশন করেন কোথায় যাবেন, কীভাবে যাবেন, আর থাকবেনই বা কোথায়। অনেকেই দ্বারস্থ হন ট্যুর অপারেটর, ট্র্যাভেল এজেন্সির। এতে ঠিকঠাকমতো ঘুরে আসা যায় ঠিকই কিন্তু নিজেদের স্বাধীনতা কিছুটা খর্ব হয় বটে! একটু সচেতন হয়ে যদি ইন্টারনেটে কিছু সময় ব্যয় করা যায় তাহলে কিন্তু সব তথ্যই পাওয়া যায়। যে কোনো জায়গার ইনফরমেশনের ক্ষেত্রে সাহায্য নিতে পারেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বিভিন্ন ভ্রমণ পেইজে। এসব সাইট থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য জেনে নিজেই নিজের প্ল্যান গুছিয়ে ফেলুন। কোনদিন, কখন, কোথায়, কীভাবে যাবেন। এতে মজার একটা স্বাধীনতা আছে।

এছাড়াও এসব গ্রুপের অনেকেই এখন ফেসবুকে ইভেন্ট খুলে অলাভজনক ইভেন্টের আয়োজন করছে দেশ ও বিদেশের অনেক জায়গায়। যাচাই-বাছাই করে এসব অনেক গ্রুপের সঙ্গে আপনিও শামিল হয়ে যেতে পারেন সহজেই। ঈদের ছুটি কিছুটা রোমন্থন করে রাখার জন্য ভ্রমণের কোনো বিকল্প নেই। পরিবারের সঙ্গে হোক কিংবা শহর ছেড়ে দূরে -ভ্রমণ আনন্দময় হোক।



আজকের প্রশ্ন