সোমবার, ২৩ জুলাই ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ০৮ মে, ২০১৮, ১১:২৫:২১

মোবাইল ফোনে অভিনব প্রতারণা, সর্বশান্ত গৃহবধূ

মোবাইল ফোনে অভিনব প্রতারণা, সর্বশান্ত গৃহবধূ

ঢাকা: ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও উপজেলায় মোবাইল ফোনে প্রতারণা করে এক গৃহবধূর দুই লক্ষাধিক টাকা ও স্বর্ণালংকার হাতিয়ে নিয়েছে প্রতারক চক্র। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার পাকাটি গ্রামে। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ গতকাল সোমবার রাতে গফরগাঁও থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

জানা যায়, উপজেলার পাকাটি গ্রামের বাদল মিয়ার স্ত্রী মরিয়ম বেগমের কাছে গত ২৯ এপ্রিল রাত ৩টার দিকে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তি ফোন করে নিজেকে আল্লাহর ওলি দাবি করে জায়নামাজ ও কোরআন শরীফ কেনার জন্য দুই হাজার ৮০০ টাকা বিকাশে পাঠাতে বলেন। ওই ঘটনা কাউকে জানালে স্বামী-সন্তানের নাক মুখ দিয়ে রক্ত বের হয়ে মারা যাবে বলে ভয় দেখান ওই ব্যক্তি। পরদিন গৃহবধূ অজ্ঞাত পরিচয় ওই ব্যক্তির উল্লিখিত নম্বরে ২৮০০ টাকা বিকাশ করেন।

ওই রাতে ওই ব্যক্তি পুনরায় ফোন করে বলেন, আল্লাহ খুশি হয়ে তোমাকে একটি স্বর্ণের পুতুল দান করেছেন, পুতুলটি বিক্রি করে মসজিদ নির্মাণ করবে। আমরা তিন হাজার ৩৫১ জন ওলি। ওলিদের মিষ্টি মুখ করার জন্য ৩৩ হাজার ৫১০ টাকা বিকাশ করতে হবে। টাকা না পাঠালে তোমার স্বামী সন্তানের বড় ক্ষতি হয়ে যাবে। আর স্বর্ণের পুতুলটি পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

ওই ব্যক্তির কথামতো গৃহবধূ ৩৩ হাজার ৫১০ টাকা বিকাশ করেন। এর কয়েক দিন পর অজ্ঞাতপরিচয় ওই ব্যক্তি পুনরায় গভীর রাতে ফোন করে বলেন, আল্লাহর দান করা স্বর্ণের পুতুলটি পাকাটি (গ্রামের) মসজিদের পাশে লাল কাপড়ে মোড়ানো অবস্থায় আছে। আরও এক লাখ ৩৩ হাজার টাকা বিকাশ করে এবং পুতুলটি মাটিতে পুঁতে রাখলে সাত কলসি স্বর্ণ পাওয়া যাবে। তবে পুতুলটি আনার সময় অবশ্যই ওই স্থানে আড়াই ভরি স্বর্ণের ও ছয় ভরি রূপার অলংকার রেখে আসতে হবে।

কথামত গৃহবধূ পাকাটি মসজিদের পাশে লাল কাপড়ে মোড়া তামার একটি পুতুল দেখতে পান। কিন্তু তিনি এটিকে স্বর্ণের পুতুল মনে করে অজ্ঞাত ব্যক্তির নির্দেশ অনুযায়ী ওই স্থানে স্বর্ণ ও রূপার অলংকার রেখে আসেন। পুতুলটি বাড়িতে রেখে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির দেওয়া চারটি নম্বরে তিনি আরও এক লাখ ৩৩ হাজার টাকা বিকাশ করেন।

টাকা পাঠানোর পর থেকে আল্লাহর ওলি পরিচয় দেওয়া ওই ব্যক্তির ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। বহু চেষ্টা করেও গৃহবধূ তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেননি। পরে বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর বুঝতে পারেন তিনি প্রতারিত হয়েছেন।

প্রতারণার শিকার গৃহবধূ বলেন, স্বামী সন্তানের ক্ষতির ভয় আর লোভে পইড়া আমি সব হারাইছি।

গফরগাঁও থানার ওসি মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খান বলেন, 'মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে প্রতারক চক্রটিকে চিহ্নিত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

আজকের প্রশ্ন

খুলনা সিটি নির্বাচনের ভোটকে ‘প্রহসন’ বলেছেন বিএনপি ও বামপন্থিরা। আপনি কি একমত?