ঢাকা, বুধবার ২৬শে জুলাই ২০১৭ - 

রামপালেই বিদ্যুৎ কেন্দ্র করতে অনড় কেন বাংলাদেশ সরকার?

প্রাইমনিউজবিডি.কম
 শুক্রবার ২১শে এপ্রিল ২০১৭

ঢাকা: বাগেরহাটের রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের বিরুদ্ধে গত কয়েক বছর ধরে রাস্তায় বিক্ষোভ করলেও সেটি সরকারের কাছে তেমন একটা গুরুত্ব পাচ্ছেনা । প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরিষ্কার করে জানিয়ে দিয়েছে রামপালেই বিদ্যুৎ কেন্দ্র হবে।

কিন্তু বামপন্থী সংগঠনগুলোর আন্দোলনে কোন ভাটা পড়েনি। বৃহস্পতিবার খুলনা শহরে তারা রামপাল প্রকল্প বিরোধী সমাবেশের পাশাপাশি আরো কিছু কর্মসূচী ঘোষণা করেছে।

বামপন্থী সংগঠনগুলোর আন্দোলনে সাধারণ মানুষের খুব একটা অংশগ্রহণ না থাকলেও সংবাদমাধ্যম এবং সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে অনেকেই এ প্রকল্পের বিপক্ষে কথা বলছেন। ইউনেস্কোসহ বিভিন্ন সংস্থা এ প্রকল্প নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। বাংলাদেশের জ্বালানী বিশেষজ্ঞ এবং পরিবেশবিদদের অনেকেই মনে করেন, সুন্দরবনের কাছে রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র না করলেই ভালো হতো।

কিন্তু এতো কিছুর পরেও সরকার কেন এ প্রকল্প নিয়ে অনড় সেটি নিয়ে বিভিন্ন ব্যাখ্যা এবং অনুমান আছে।

সরকার বিরোধীদের অনেকেই মনে করেন, এ প্রকল্পের সাথে ভারত সম্পৃক্ত থাকায় বাংলাদেশ সরকার এখান থেকে পিছিয়ে আসতে চাইছে না ।

তবে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এবং জ্বালানী বিশেষজ্ঞ ইজাজ হোসেন জানালেন, রামপালের বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের বিষয়ে ভারতের আগ্রহের পাশাপাশি বাংলাদেশের চাহিদা ছিল।

‘বাংলাদেশ চাচ্ছিল যে তাদের কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো কোস্টাল এরিয়ার (উপকূলীয় এলাকার) বিভিন্ন জায়গায় হবে। কারণ বিদ্যুতের জন্য কয়লা বিদেশ থেকে আমদানি করতে হয়, ‘বলছিলেন অধ্যাপক হোসেন। বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো দেশের একটি অঞ্চলে বেশি না করে বিভিন্ন জায়গায় স্থাপন করা হলে বিদ্যুৎ বিতরণে সুবিধা হয় বলে উল্লেখ করেন তিনি।

রামপালের যে জায়গাটিতে বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করা হবে সেটি সুন্দরবন থেকে ১৪ কিলোমিটার দুরে। আন্দোলনকারীরা যুক্তি দিচ্ছেন, এখানে কয়লা পরিবহন করতে হবে সুন্দরবনের ভেতর দিয়ে। ফলে জীব-বৈচিত্র বাধাগ্রস্ত হবে। এছাড়া বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে দূষণ নির্গমন সুন্দরবনকে সংকটাপন্ন করবে।

যে জায়গাটিতে এখন বিদ্যুৎ কেন্দ্র হতে যাচ্ছে সেটি ছাড়া ভিন্ন কোন জায়গা কি বাছাই করা যেত?

অধ্যাপক ইজাজ হোসেন মনে করেন, একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র হলেই যে পুরো সুন্দরবন ধ্বংস হয়ে যাবে এমন ধারনার সাথে তিনি একমত নন। তবে জীব-বৈচিত্রের কথা চিন্তা করে অন্য আরেকটি জায়গায় বিদ্যুৎ কেন্দ্র সরিয়ে নেয়া যেত।

অধ্যাপক হোসেন জানালেন, এ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য যে পরিবেশগত সমীক্ষা করা হয়েছিল সেটি উপস্থাপনের সময় তিনি উপস্থিত ছিলেন। সেখানে দু’টো জায়গার কথা বলা হয়েছিল। এখন যে জায়গাটিতে নির্মিত হতে যাচ্ছে তার চেয়ে প্রায় ১৫ কিলোমিটার দূরে আরেকটি জায়গার প্রস্তাব করা হয়েছিল। কিন্তু বর্তমান জায়গাটিতে জমির মূল্য কম হওয়ার কারণে এ জায়গাটি বাছাই করা হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তবে রামপাল প্রকল্পের জন্য যে পরিবেশগত সমীক্ষা করা হয়েছে সেটি ‘বিশ্বমানের’ হয়নি বলে মনে তিনি।

‘এইআইএ রিপোর্টটা তো সরকার করিয়েছে। মোটামুটি সরকার যেভাবে চিন্তা করেছে তারা ওভাবেই ওটা পরিবেশন করেছে। আমি সরকারকে বলেছিলাম একটা আন্তর্জাতিক থার্ড পার্টি দিয়ে এটা করালে আপনাদের জন্যই ভালো হতো। তাহলে আর কোন বিতর্ক থাকতো না বলেও জানান অধ্যাপক হোসেন।

রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের সকল প্রক্রিয়া প্রায় শেষ। ভারতের এক্সিম ব্যাংক থেকে ঋণ অনুমোদনও হয়েছে। এসব প্রক্রিয়া শেষ করতে প্রায় পাঁচ বছর সময় লেগেছে। সরকার মনে করে এমন অবস্থায় এ প্রকল্প থেকে পিছ পা হবার কোন সুযোগ নেই। সরকারের দাবী পরিবেশগত সমীক্ষা নিয়ে প্রশ্ন তোলার কোন সুযোগ নেই।

জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলছেন, সুন্দরবনের ক্ষতি না হবার বিষয়টি নিশ্চিত হয়েই এ প্রকল্পের জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছে। তিনি জানান, দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের উন্নয়নের কথা চিন্তা করেই এ রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

নসরুল হামিদ বলেন, ‘আমাদের বর্তমানে উৎপাদিত বিদ্যুতের দুই থেকে তিন শতাংশ দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ ব্যবহার করে। যেদিন পদ্মা সেতু হবে এটা সাত শতাংশের উপরে চলে যাবে। তখন সে এলাকায় মিনিমাম (কমপক্ষে) তিন হাজার মেগাওয়াট জেনারেশন (উৎপাদন) হতে হবে। আমাকে বিদ্যুৎ দিতে হবে। টার্গেটটা ওখানে’।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সে এলাকায় বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য কয়লা পরিবহন সহজ হবে। তিনি মনে করেন, সুন্দরবন থেকে যথেষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে এ বিদ্যুৎ কেন্দ্র করা হচ্ছে।

সরকার এও মনে করছে যে আন্দোলন যারা করছে তাদের সংখ্যা হাতে গোনা।

বিবিসি বাংলা

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন




প্রেমের ক্ষেত্রে যে ভুলগুলো কখনই করেন না বুদ্ধিমতীরা কখন খাবার খেলে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে? চুয়াডাঙ্গায় মন্দিরের প্রধান ফটকের তালা ভেঙ্গে শিবমুর্তি চুরি নওগাঁ-২ পত্নীতলা-ধামইরহাট আসনে আওয়ামীলীগ, বিএনপি ও জাপার একাধিক প্রার্থী ভোলায় ভোক্তা অধিকার আইনে পাঁচ ব্যবসায়ীর জরিমানা গোপালগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামীসহ গ্রেফতার-১৯ মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের পর্ষদ সভা ৩০ জুলাই ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন শেষ খালেদা জিয়া লন্ডন যাবার পর সরকারের ঘুম হারাম: রিজভী ৫৭ ধারা সাংবাদিক উচ্ছেদের জন্য নয়: তথ্যমন্ত্রী ক্যাটরিনাকে নিয়ে উদ্বিগ্ন সালমান ঠাকুরগাঁওয়ে বার্ষিক শিশু সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক উৎসব পালিত পরিবারকে ঝামেলায় রেখে তাবলিগে যাওয়া কি ঠিক? ১৫.৮০% ঋণ প্রবৃদ্ধি ধরে মুদ্রানীতি ঘোষণা নারায়ণগঞ্জের ৭ খুন: শুনানি শেষ, রায় ১৩ আগস্ট বিসিবির সংশোধিত গঠনতন্ত্র নিয়ে আপিল নিষ্পত্তি খেলাপি ঋণের ঝুঁকিতে ব্যাংকিং খাত রাজধানীতে ৩ জেএমবি সদস্য আটক ১৬ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা আছে এই ফোনে প্রগতি লাইফের লেনদেন বন্ধ বৃহস্পতিবার গাল নরম কোমল গোলাপী করে তুলুন প্রাকৃতিকভাবে পুরুষেরা মেয়েদের যে ৭টি বিষয় প্রথমেই দেখে পিপলস লিজিংয়ের প্রথম প্রান্তিক প্রকাশ লিপস্টিক অনেকক্ষণ ধরে সংরক্ষণের সঠিক নিয়ম বিকিনি পরিহিত ছবি পোষ্ট করে বিপাকে নারী পুলিশ অফিসার! অর্ধশত সংসদ সদস্যের জনপ্রিয়তায় ব্যাপক ধস বাহুবলে ৪ শিশু হত্যায় ৩ জনের ফাঁসি, ২ জনের ৭ বছরের কারাদণ্ড ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন চলছে সম্ভাব্য অর্ধশতাধিক নতুন প্রার্থীর তালিকা খালেদা জিয়ার হাতে বিপিএল মাতাতে আসছেন লুক রাইট ঢাকা ইন্স্যুরেন্সের পর্ষদ সভা ৩১ জুলাই স্বামী হত্যার লোহমর্ষক বর্ণনা দিলেন স্ত্রী মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত থাকা জরুরি যে কারণে আল-আকসা মসজিদে জুমার নামাজ নিষিদ্ধ, বাংলাদেশের নিন্দা সকালে দ্রুত শক্তি জোগায় এসব খাবার কুষ্টিয়ায় পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২ মিরপুর বেড়িবাঁধে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২ সিটিসেলের তরঙ্গ খুলে দেয়া হয়েছে ভারত থেকে গরুর সঙ্গে যেন অস্ত্র না আসে: বিজিবি মহাপরিচালক রাজধানীতে র‌্যাব-ছিনতাইকারী বন্দুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ ২ ব্যর্থ মানুষদের ঘুমানোর ১৪টি বদ অভ্যাস রাঙিয়ে দিয়ে যাও গো এবার যাবার আগে পুলিশের ১৪ কর্মকর্তা বদলি জেনে নিন বুধবার দিনটি কেমন যাবে? বিএনপি একনায়কতন্ত্রে বিশ্বাস করে না: ফখরুল যুব মহিলা লীগের ১২১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ইতিবাচক ইমেজ তৈরির ১০ কৌশল ঘুমের সমস্যায় বন্ধু বিচ্ছেদ হতে পারে! পাবনায় ইসলামী ব্যাংকের ৩২১তম শাখা উদ্বোধন এই ছবিটি ঘুরছে গোটা ফেসবুক জুড়ে...