ঢাকা, মঙ্গলবার ২৩শে মে ২০১৭ - 

‘ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত মেয়েদের জন্য আতঙ্ক’

প্রাইমনিউজবিডি.কম
 বুধবার ১৭ই মে ২০১৭

ঢাকা: ভারতে শিশুদের অধিকার নিয়ে কাজ করে এমন একটি বেসরকারি সংস্থা বলছে, বাংলাদেশের সীমান্ত এলাকার পরিবারগুলো তাদের সন্তানদেরকে পাচারের কবল থেকে বাঁচাতে অনেকেই বাল্যবিবাহের পথ বেছে নিচ্ছেন। 'জাস্টিস এন্ড কেয়ার' নামের সংস্থাটি বলছে, শিশু-কিশোরীরা পাচার হতে পারে এই আশঙ্কা করলেও তারা পুলিশ অথবা সীমান্তরক্ষীদের না জানিয়ে ভয়ে চুপ করে থাকেন তারা।

পশ্চিমঙ্গের সীমান্ত এলাকার আটটি গ্রামে সংস্থাটির চালানো এক সমীক্ষায় এসব তথ্য উঠে এসেছে। মঙ্গলবার এ সমীক্ষাটি প্রকাশ করা হয়। ভারত-বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী আটটি গ্রামের প্রায় তিনশ কিশোরী এবং প্রায় দেড়শ মায়ের সঙ্গে কথা বলে সমীক্ষকরা জানাচ্ছেন, মূলত প্রলোভন দেখিয়ে ভারতের সীমান্তবর্তী অঞ্চলগুলি থেকে, এবং বাংলাদেশ থেকে ভারতে, শিশু-কিশোরী পাচার হচ্ছে।

'জাস্টিস এন্ড কেয়ার' সংস্থাটির গবেষণা পরিচালক সায়ন্তনী দত্ত বলছিলেন, "আমাদের সমীক্ষার একটা উদ্দেশ্য ছিল এটা জানার যে সীমান্ত অঞ্চলের মানুষ পাচারের ব্যাপারে কতটা জানেন। আমরা দেখেছি তাঁরা সবকিছুই জানেন। কিন্তু তা স্বত্ত্বেও চুপ করে থাকতে বাধ্য হন। পুলিশ বা সীমান্তরক্ষী বাহিনীকে পাচারের ব্যাপারে জানাতে চান না ভয়ে। পাচারকারী বা তাদের দালালরা ওই এলাকাতেই ঘোরে আর তারা ভীষণ ক্ষমতাবান। তাদের যদি শাস্তি না হয়, তখন যিনি খবর দিয়েছেন, তাকেও বিপদের মুখে পড়তে হবে। এই আশঙ্কাতেই চুপ করে থাকেন সবাই।"

এছাড়াও সমীক্ষায় দেখা গেছে যে সীমান্ত অঞ্চলটি মেয়েদের কাছে, বিশেষত কিশোরীদের কাছে আতঙ্কের কারণ হয়ে উঠেছে। কারণ প্রলোভন দেখিয়ে পাচার করা ছাড়াও অপহরণ করে বা মাদক খাইয়েও মেয়েদের নিয়ে যাচ্ছে পাচারকারীরা। অনেক মেয়েই সমীক্ষকদের জানিয়েছে যে তারা স্কুলে বা প্রাইভেট টিউশনি পড়তে যেতেও ভয় পায়।

"সমীক্ষায় দেখা গেছে যে অনেক বাবা-মা তাঁদের মেয়েদের কম বয়সে বিয়ে দিয়ে দিচ্ছেন যাতে তারা বিপদে না পড়ে, অর্থাৎ পাচারকারীদের খপ্পরে না পড়ে," বলছিলেন মিজ. দত্ত।

আবার বাংলাদেশ থেকে যাদের পাচার করে ভারতে নিয়ে আসা হয়েছে, তাদের অনেকের সঙ্গে কথা বলে সমীক্ষকরা দেখেছেন যে পাচার হবার বিষয়টি তারা বুঝতেই পারেনি। কিশোরীরা অনুমান করতে পারেনি যে তাদের অন্য দেশে আনা হয়েছে।

সায়ন্তনী দত্তর কথায়, "তারা হয়তো ভেবেছে বাংলাদেশেরই কোনও জায়গায় কাজের জন্য বা বিয়ের জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। রাতের বেলা যে তাদের আন্তর্জাতিক সীমান্ত পার করিয়ে দেওয়া হয়েছে, এটা পরের দিন সকালে তারা টের পেয়েছে। কিন্তু এদেশে কার কাছে সাহায্য চাইবে, সেটা তারা জানে না।"

সমীক্ষক দল ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিণী বা বিএসএফের কাছে সুপারিশ করেছে যে সীমান্তরক্ষী বাহিনীকে আরও সংবেদনশীল হতে হবে শিশু পাচারের বিষয়ে। যেভাবে সীমান্ত এতদিন পাহারা দিয়ে এসেছে, সে পদ্ধতি বদল করতে হবে। সীমান্ত চৌকিগুলিকে পাচারের শিকার হওয়া শিশু-কিশোরীদের কাছে আরও মিত্রভাবাপন্ন করে তুলতে হবে।বর্ডার গার্ডস বাংলাদেশের সঙ্গেও যৌথভাবে পাচার রোধে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে হবে।

বিএসএফ'র দক্ষিণ বঙ্গ ফ্রন্টিয়ারের ইন্সপেক্টর জেনারেল পি এস আর আঞ্জানিয়েলু বলছিলেন, "কারা পাচারের শিকার হয়ে আসছে, আর কারা অনুপ্রবেশ করছে - এই পার্থক্য করাটা বিএসএফ সদস্যদের কাছে খুবই কঠিন। পাচারের বিষয়ে কিছুটা জানা থাকলেও অনেক সময় আমাদের ভুল হচ্ছে, কারণ আমাদের ঠিকমতো প্রশিক্ষণ নেই এ বিষয়ে। সবেমাত্র এই বিষয়টা জানতে বুঝতে শুরু করেছি আমরা।"

সীমান্তরক্ষীদের প্রশিক্ষণও দেওয়া হচ্ছে যাতে পাচারের শিকার হওয়া ব্যক্তিদের ব্যাপারে অনেক বেশী সংবেদনশীল করানো যায় বাহিনীকে। প্রশিক্ষনের অংশ হিসাবে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোর সঙ্গে সীমান্ত প্রহরীদের নিয়মিত দেখা-সাক্ষাত এবং মত বিনিময় করানো হচ্ছে সীমান্তে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জাস্টিস এন্ড কেয়ারকে দিয়ে এই সমীক্ষাটি বিএসএফই করিয়েছে।

সীমান্ত অঞ্চলের মানুষদের একটা বড় অংশের মধ্যে বিএসএফের প্রতি যে একটা বিরূপ মনোভাব রয়েছে, শিশুপাচার রোধ নিয়ে কাজ করলে সেই মনোভাবও কাটিয়ে ওঠা যাবে বলে মনে করছে বিএসএফ। বাংলাদেশ সীমান্তের মতো একটা বন্ধুত্বপূর্ণ সীমান্তের গ্রামবাসীদের বিএসএফের প্রতি বিরূপ মনোভাব কাটিয়ে উঠার উপায় নিয়ে গবেষণা করতে দিল্লিতে একটি গবেষনা কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। বিবিসি বাংলা



খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে প্রশ্নবিদ্ধ তল্লাশি বিচারহীনতার কারণে ধর্ষণ এখন জাতীয় ক্রীড়া: এরশাদ ইএফটি ও আরটিজিএস সেবা প্রদানে ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দশম আইপিএলে কারা পেলেন ১১ পুরস্কার রাবির হল থেকে এইচএসসি’র খাতা উদ্ধার, ২ শিক্ষক আটক বান্দরবানে সন্ত্রাসীদের সঙ্গে সেনাবাহিনীর গোলাগুলি, আটক ৩ প্রাণঘাতি রোগ লিভার সিরোসিস মঙ্গলবার দিনটি আপনার কেমন যাবে? ‘নাজমুল হুদা কোন রাজনীতিবিদ নন’ শ্রীলংকা-বাংলাদেশ সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় হবে : স্পিকার জনতা ব্যাংকের নিয়োগ কার্যক্রমে নিষেধাজ্ঞা 'খালেদা জিয়ার কণ্ঠে অপরাজনীতির বিরুদ্ধে সুন্দর কথা মানায় না' হঠাৎ তৎপর রাশিয়ার ‘ঘাতক উপগ্রহ! ঠাকুরগাঁওয়ে ঢোলারহাট ইউনিয়ন পরিষদের বাজেট ঘোষনা ফুলবাড়ীতে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্ট ছেলের দায়ের কোপে বাবা আহত ভোলায় ২১৭৫ পিস ইয়াবাসহ দুই যুবক আটক বাহুবলিকে টেক্কা দেবে শ্রুতির 'সংঘমিত্র'! ইন্দোনেশিয়ায় ১৪১ জন সমকামী আটক বুধবার সোহরাওয়ার্দীতে বিএনপির সমাবেশ দরপতনের শীর্ষে রুপালী ব্যাংক গেইনারের শীর্ষে অগ্নি সিস্টেমস প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানে তরুণীকে ধর্ষণ, ৯ মাস পর মামলা মেক্সিকোয় বাস খাদে, চার্চের ১৭ সদস্য নিহত ’অযোগ্য বলে আমাকে খোঁটা দিত’ রেইনট্রিতে উদ্ধারকৃত ১০ বোতল মদ বলে প্রমাণ ‘৮ বছরে সব গাড়ি ইলেকট্রিক হবে, ব্যবসা হারাবে তেল’ আলু, শশা, টমেটো বেশি খেলে, বিপদ আপনার সামনে! পাঠ্যপুস্তকে ফের নতুন ভুল যাতে না হয়, শিক্ষামন্ত্রীর সতর্কবার্তা ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন শেষ দুই ছাত্রী ধর্ষণ মামলা নিতে গাফিলতি ছিল না ফিল্মি স্টাইলে শোরুম ম্যানেজারকে গুলি করে পৌনে ২ লাখ টাকা ছিনতাই উত্তরাঞ্চলে পণ্য পরিবহন ধর্মঘট আরো ২৪ ঘণ্টা বাড়লো বাংলাদেশকে ল্যাথামের হুমকি প্রেম করে বিয়ে, অতঃপর লাশ রমজানে ভেজাল ইফতারি বিক্রি করলে কঠোর ব্যবস্থা: সাঈদ খোকন পার্বত্যাঞ্চলের স্থাপনা থেকে ত্রিদিবের নাম মুছে ফেলার নির্দেশ মোটর সাইকেলের ধা্ক্কায় বৃদ্ধ নিহত জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত-২০ `বিএনপির আন্দোলন দমন যুবলীগই যথেষ্ট' সঙ্গীর চাকরি চলে গেলে আপনার করণীয় সোমবার আওয়ামী লীগ সম্পাদকমণ্ডলীর জরুরি সভা বিয়ে করতে যাচ্ছেন শুভশ্রী-রাজ! নাটকীয়তাপূর্ণ ম্যাচে পুনেকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই চ্যাম্পিয়ন রিয়াল, জিতেও শিরোপা হারালো বার্সা নাটোরে ২য় দিনে চলছে পণ্যপরিবহন মালিকদের ধর্মঘট মাহে রমজানের পূর্ব প্রস্তুতি চোখের মেকআপ ওঠানোর কৌশল আহসানউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই শিক্ষককে আত্মসমর্পণের নির্দেশ ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন চলছে