ঢাকা, শনিবার ২১শে অক্টোবর ২০১৭ - 

‘ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত মেয়েদের জন্য আতঙ্ক’

প্রাইমনিউজবিডি.কম
 বুধবার ১৭ই মে ২০১৭

ঢাকা: ভারতে শিশুদের অধিকার নিয়ে কাজ করে এমন একটি বেসরকারি সংস্থা বলছে, বাংলাদেশের সীমান্ত এলাকার পরিবারগুলো তাদের সন্তানদেরকে পাচারের কবল থেকে বাঁচাতে অনেকেই বাল্যবিবাহের পথ বেছে নিচ্ছেন। 'জাস্টিস এন্ড কেয়ার' নামের সংস্থাটি বলছে, শিশু-কিশোরীরা পাচার হতে পারে এই আশঙ্কা করলেও তারা পুলিশ অথবা সীমান্তরক্ষীদের না জানিয়ে ভয়ে চুপ করে থাকেন তারা।

পশ্চিমঙ্গের সীমান্ত এলাকার আটটি গ্রামে সংস্থাটির চালানো এক সমীক্ষায় এসব তথ্য উঠে এসেছে। মঙ্গলবার এ সমীক্ষাটি প্রকাশ করা হয়। ভারত-বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী আটটি গ্রামের প্রায় তিনশ কিশোরী এবং প্রায় দেড়শ মায়ের সঙ্গে কথা বলে সমীক্ষকরা জানাচ্ছেন, মূলত প্রলোভন দেখিয়ে ভারতের সীমান্তবর্তী অঞ্চলগুলি থেকে, এবং বাংলাদেশ থেকে ভারতে, শিশু-কিশোরী পাচার হচ্ছে।

'জাস্টিস এন্ড কেয়ার' সংস্থাটির গবেষণা পরিচালক সায়ন্তনী দত্ত বলছিলেন, "আমাদের সমীক্ষার একটা উদ্দেশ্য ছিল এটা জানার যে সীমান্ত অঞ্চলের মানুষ পাচারের ব্যাপারে কতটা জানেন। আমরা দেখেছি তাঁরা সবকিছুই জানেন। কিন্তু তা স্বত্ত্বেও চুপ করে থাকতে বাধ্য হন। পুলিশ বা সীমান্তরক্ষী বাহিনীকে পাচারের ব্যাপারে জানাতে চান না ভয়ে। পাচারকারী বা তাদের দালালরা ওই এলাকাতেই ঘোরে আর তারা ভীষণ ক্ষমতাবান। তাদের যদি শাস্তি না হয়, তখন যিনি খবর দিয়েছেন, তাকেও বিপদের মুখে পড়তে হবে। এই আশঙ্কাতেই চুপ করে থাকেন সবাই।"

এছাড়াও সমীক্ষায় দেখা গেছে যে সীমান্ত অঞ্চলটি মেয়েদের কাছে, বিশেষত কিশোরীদের কাছে আতঙ্কের কারণ হয়ে উঠেছে। কারণ প্রলোভন দেখিয়ে পাচার করা ছাড়াও অপহরণ করে বা মাদক খাইয়েও মেয়েদের নিয়ে যাচ্ছে পাচারকারীরা। অনেক মেয়েই সমীক্ষকদের জানিয়েছে যে তারা স্কুলে বা প্রাইভেট টিউশনি পড়তে যেতেও ভয় পায়।

"সমীক্ষায় দেখা গেছে যে অনেক বাবা-মা তাঁদের মেয়েদের কম বয়সে বিয়ে দিয়ে দিচ্ছেন যাতে তারা বিপদে না পড়ে, অর্থাৎ পাচারকারীদের খপ্পরে না পড়ে," বলছিলেন মিজ. দত্ত।

আবার বাংলাদেশ থেকে যাদের পাচার করে ভারতে নিয়ে আসা হয়েছে, তাদের অনেকের সঙ্গে কথা বলে সমীক্ষকরা দেখেছেন যে পাচার হবার বিষয়টি তারা বুঝতেই পারেনি। কিশোরীরা অনুমান করতে পারেনি যে তাদের অন্য দেশে আনা হয়েছে।

সায়ন্তনী দত্তর কথায়, "তারা হয়তো ভেবেছে বাংলাদেশেরই কোনও জায়গায় কাজের জন্য বা বিয়ের জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। রাতের বেলা যে তাদের আন্তর্জাতিক সীমান্ত পার করিয়ে দেওয়া হয়েছে, এটা পরের দিন সকালে তারা টের পেয়েছে। কিন্তু এদেশে কার কাছে সাহায্য চাইবে, সেটা তারা জানে না।"

সমীক্ষক দল ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিণী বা বিএসএফের কাছে সুপারিশ করেছে যে সীমান্তরক্ষী বাহিনীকে আরও সংবেদনশীল হতে হবে শিশু পাচারের বিষয়ে। যেভাবে সীমান্ত এতদিন পাহারা দিয়ে এসেছে, সে পদ্ধতি বদল করতে হবে। সীমান্ত চৌকিগুলিকে পাচারের শিকার হওয়া শিশু-কিশোরীদের কাছে আরও মিত্রভাবাপন্ন করে তুলতে হবে।বর্ডার গার্ডস বাংলাদেশের সঙ্গেও যৌথভাবে পাচার রোধে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে হবে।

বিএসএফ'র দক্ষিণ বঙ্গ ফ্রন্টিয়ারের ইন্সপেক্টর জেনারেল পি এস আর আঞ্জানিয়েলু বলছিলেন, "কারা পাচারের শিকার হয়ে আসছে, আর কারা অনুপ্রবেশ করছে - এই পার্থক্য করাটা বিএসএফ সদস্যদের কাছে খুবই কঠিন। পাচারের বিষয়ে কিছুটা জানা থাকলেও অনেক সময় আমাদের ভুল হচ্ছে, কারণ আমাদের ঠিকমতো প্রশিক্ষণ নেই এ বিষয়ে। সবেমাত্র এই বিষয়টা জানতে বুঝতে শুরু করেছি আমরা।"

সীমান্তরক্ষীদের প্রশিক্ষণও দেওয়া হচ্ছে যাতে পাচারের শিকার হওয়া ব্যক্তিদের ব্যাপারে অনেক বেশী সংবেদনশীল করানো যায় বাহিনীকে। প্রশিক্ষনের অংশ হিসাবে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোর সঙ্গে সীমান্ত প্রহরীদের নিয়মিত দেখা-সাক্ষাত এবং মত বিনিময় করানো হচ্ছে সীমান্তে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জাস্টিস এন্ড কেয়ারকে দিয়ে এই সমীক্ষাটি বিএসএফই করিয়েছে।

সীমান্ত অঞ্চলের মানুষদের একটা বড় অংশের মধ্যে বিএসএফের প্রতি যে একটা বিরূপ মনোভাব রয়েছে, শিশুপাচার রোধ নিয়ে কাজ করলে সেই মনোভাবও কাটিয়ে ওঠা যাবে বলে মনে করছে বিএসএফ। বাংলাদেশ সীমান্তের মতো একটা বন্ধুত্বপূর্ণ সীমান্তের গ্রামবাসীদের বিএসএফের প্রতি বিরূপ মনোভাব কাটিয়ে উঠার উপায় নিয়ে গবেষণা করতে দিল্লিতে একটি গবেষনা কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। বিবিসি বাংলা



Advertisement
আফগানিস্তানে মিলিটারি বাসে হামলা: নিহত ১৫ ১০ ঘন্টা পর পাটুরিয়া -দৌলতদিয়া রুটে ফেরি চলাচল শুরু রবিবার ৩৩ পর্যবেক্ষকের সঙ্গে সংলাপে বসছে ইসি সম্পত্তি নিয়ে পাকিস্তানি ‘আত্মীয়’র সঙ্গে বিবাদে জড়ালেন সাইফ সাভারে সাংবাদিকদের সাথে ইউপি চেয়ারম্যানের মত বিনিময় 'ভাই' সেজে প্রেমিকার শ্বশুরবাড়িতে হাজির প্রেমিক, অতঃপর...! সোমবার দুপুরে সুষমা-খালেদা একান্ত বৈঠক দেশে দুর্যোগ চলছে আর গণতন্ত্রে মহাদুর্যোগ চলছে: মওদুদ ‘রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে ক্ষমতাসীনদের নৈতিক অবস্থান নেই’ রোহিঙ্গাদের সাহায্যে কারও কাছে হাত পাতিনি: জয় টপলেস হতে আপত্তি নেই কারিশমার তালতলীতে বেরীবাঁধ ভেঙ্গে ৮গ্রাম প্লাবিত : ২০ হাজার মানুষ পানি বন্দি মধ্যরাতে পরকীয়া প্রেমিকাসঙ্গ, কলেজ অধ্যক্ষকে গণধোলাই ভোলায় নিজের বাল্য বিয়ে ঠেকিয়ে দিলো রেশমা ভোটাধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠার স্বার্থে আমরা নির্বাচনে যাবো: দুদু গোপনে ইসরাইল সফর করলেন সৌদি যুবরাজ সালমান! যারা অতিরিক্ত কাঁদেন তারা কেমন মানুষ? ভারতে ট্রাক উল্টে নিহত ১০ বন্ধ হচ্ছে টিএসসি’র কার্যক্রম নভেম্বরে চলবে দেশব্যাপী সাঁড়াশি অভিযান পশ্চিমবঙ্গে ইলিশের বন্যা, বাংলাদেশে নিষিদ্ধ মালয়েশিয়ায় ভূমিধসে নিহত ৩, বাংলাদেশিসহ নিখোঁজ ১১ কিরকুকের সম্পূর্ণ দখল নিয়েছে ইরাকি বাহিনী বৃষ্টির দিনে বাসায় যেভাবে সময় কাটাবেন খালেদা জিয়া ষড়যন্ত্র করে দেশে ফিরেছেন: সেতুমন্ত্রী ‘স্টুডেন্ট অব দি ইয়ার’ সম্পর্কে অজানা কিছু তথ্য অক্ষয় নয়, রণবীর সিং সুষমার ঢাকা সফরে বিএনপির সঙ্গে বৈঠকে এজেন্ডার বাইরেও আলোচনা! সিনহার বদলে মিঞা: সঙ্কটের সুরাহা হবে কি? জঙ্গিদের সঙ্গে সংঘর্ষে মিশলের ৩৫ পুলিশ নিহত জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের নিন্দা ও প্রতিবাদ কুষ্টিয়ায় বৃষ্টিতে দেয়াল ধসে বৃদ্ধার মৃত্যু রিয়াল মাদ্রিদে ব্রাজিলিয়ান বিস্ময় তরুণ যৌন হেনস্তার জন্য নারীরাও দায়ী, অভিনেত্রীর মন্তব্যে তোলপাড় ‘হার্ভের মতো যৌনলিপ্সু বলিউডেও আছে’ রবিবার জাপানে আছড়ে পড়বে টাইফুন ‘লান’ ইভিএমে বিশেষজ্ঞদের ‘না’ শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরি ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ মৃত্যু ঝুকির পরেও ডাক্তারদের বিজনেস বাড়াতে করা হয় সিজার নদী থেকে অবৈধভাবে বালু তুলছেন আ.লীগ নেত্রী পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা বন্ধ করবে না উ.কোরিয়া দাম্পত্য জীবনে একঘেয়েমি? জেনে নিন উষ্ণতা ফেরানোর সহজ উপায় প্রেম নিবেদন করবেন? জেনে নিন ভালবাসার ১০টি পৃথিবীবিখ্যাত পংক্তি ধর্ষিতার পরিবারের কাছে 'ভোজ' খাওয়ানোর দাবি গ্রামবাসীর সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত, আজও সারাদেশে ভারি বৃষ্টি প্রেম করে বিয়ে করতে গেলে যে ৭টি ঝামেলায় আপনাকে পড়তে হবে চীনে প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থানচেষ্টা! রোহিঙ্গাদের দেখতে আসছেন জর্ডানের রানী কাবুলে মসজিদে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ৩০