ঢাকা, মঙ্গলবার ২২শে আগস্ট ২০১৭ - 

জ ই মামুন ও অমি পিয়ালের বিচার দাবী করলো হেফাজত

প্রাইমনিউজবিডি.কম
 সোমবার ১৯শে জুন ২০১৭

ঢাকা : মুসলমানদের কাছে অত্যন্ত সম্মানিত ও মর্যাদাবান নবী হযরত ইবরাহীম (আ.)কে নিয়ে এটিএন বাংলার চিফ এক্সিকিউটিভ এডিটর জ ই মামুন ও শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চের সাথে সম্পৃক্ত অমি রহমান পিয়ালের বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলামের যুগ্মমহাসচিব মাওলানা মুঈনুদ্দীন রুহী।


১৮ জুন রবিবার প্রেরিত এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, এটিএন বাংলার চিফ এক্সিকিউটিভ এডিটর জ ই মামুন ফেইসবুকের কমেন্টে প্রশ্ন তুলে লিখেছেন, “হযরত ইব্রাহিম কি করে মোছলমান (মুসলিম) জাতির পিতা হন, তিনি তো অমুসলিম!”


মাওলানা মুঈনুদ্দীন রুহী বলেন, জ ই মামুন ইচ্ছে করেই শব্দটি লিখলেন “মোছলমান”! এই শব্দটি তিনি ব্যাঙ্গার্থেই ব্যবহার করেছেন। তাই এটা শুধু নির্দোষ প্রশ্ন নয়, মুসলমান সম্প্রদায়ের প্রতি তাচ্ছিল্য ও তার আচরিত ধর্মের প্রতি বিদ্বেষপূর্ণ।


তিনি বলেন, জ ই মামুনের এই কমেন্টের পরে শাহাবগী অমি পিয়াল বেশ মজা পেয়ে এটা নিয়ে স্ট্যাটাস দেওয়ার ইচ্ছা পোষন করেন এবং অবশেষে একটি নাতিদীর্ঘ স্ট্যাটাসে তিনি প্রশ্ন রাখলেন- “যদি ইব্রাহীম (আ.) মানব জাতির পিতা হন, তাইলে হযরত আদম (আ.) কি? তারপর এবং ইব্রাহিমের আগের নবীদের স্ট্যাটাস কি?


তিনি যদি মুসলিম সম্প্রদায়ের (মুসলমান কোনো জাতি না) পিতা হন, তাইলে ইসলাম অবতরণের এতো আগে তিনি পিতা হইলেন ক্যামনে? তারে তো কোনো কিতাব দিয়া রাসূলও বানানো হয় নাই আল্লাহর তরফে। হইলেনই যখন তারপর আল্লাহ আহলে কিতাব কম দেন নাই। মুসলমানরা তাদের স্বজাতি না মাইনা খারিজ কইরা কতলের মিশন নিলো ক্যান?


আর যদি তিনি আরব জাতির পিতা হন তাইলে আমরা বাঙালি জাতি তারে পিতা মানুম ক্যান! আমরা তো আরব না”।


মাওলানা মুঈনুদ্দীন রুহী বলেন, জ ই মামুন ও শাহবাগী অমি পিয়াল, এই দুইজন অজ্ঞতা বশত এইকথাগুলো বলেনি, বরং জেনেশুনেই ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের আঘাত করার জন্য চরম বেয়াদবি ও ফাসেকি করেছে।


তিনি বলেন, মুসলিম জাতির পিতা ইবরাহীম (আ.)। পবিত্র কুরআনে আল্লাহ্ তাআলা স্পষ্টভাবে তা জানিয়ে দিয়েছেন। এরপরও যারা হযরত ইবরাহীম (আ.)কে মুসলিম জাতির পিতা অমান্য করে, তারা তো আল্লাহ্ তাআলার বাণী অর্থাৎ- কুরআনকে অস্বীকার করে। আর যারা কুরআনকে অস্বীকার করে, তারা নিঃসন্দেহে কাফির। আর কাফিরদের চিরস্থায়ী বাসস্থান হবে জাহান্নাম। পবিত্র কুরআনের আয়াত (অনুবাদ)- “তোমরা তোমাদের পিতা ইবরাহীমের ধর্মে কায়েম থাক। তিনিই (আল্লাহ) তোমাদের নাম মুসলমান রেখেছেন পূর্বেও এবং এই কুরআনেও, যাতে রাসূল তোমাদের জন্যে সাক্ষ্যদাতা এবং তোমরা সাক্ষ্যদাতা হও মানবম-লির জন্যে। সুতরাং তোমরা নামায কায়েম কর, যাকাত দাও এবং আল্লাহকে শক্তভাবে ধারণ কর। তিনিই তোমাদের মালিক। (সূরা আল-হাজ্জ- ৭৮ আয়াত)। পবিত্র কুরআনের অপর আয়াতে ঘোষণা এসেছে, “ইবরাহীম ইহুদী ছিলেন না এবং খ্রিস্টানও ছিলেন না, কিন্তু তিনি ছিলেন একনিষ্ঠ মুসলমান এবং তিনি মুশরিক ছিলেন না। (আল-ইমরান- ৬৭ আয়াত)।


হযরত ইবরাহীম কেন মুসলিন জাতির পিতা- এর উত্তরে মাওলানা মুঈনুদ্দীন রুহী বলেন, হযরত ইবরাহীমের একত্ববাদের যারা অনুসারি তাঁরা ‘মিল্লাতে ইবরাহীম’। এই মিল্লাতে ইবরাহীম হচ্ছে, একত্ববাদের মাধ্যমে মানবজাতিকে ঐক্যবদ্ধ করার প্রয়াস। সেই ঐক্যের মিল্লাতে হযরত ইবরাহীম (আ.)এর স্মরণে আনবার জন্যই হযরত ইবরাহীম (আ.)কে স্মরণ ইসলামে বিশ্বাসীদের জন্য বাধ্যতামূলক। আল্লাহর আদেশ পালন করতে গিয়ে হযরত ইবরাহীম নিজের পুত্র সন্তানকে কোরবানী করতে নিয়ে গিয়েছিলেন। সেই ঘটনার স্মরণে কোরবানী দেওয়াকে ইসলামে ওয়াজিব করা হয়েছে। তাই এই দিন হযরত ইবরাহীম আলাইহিমুস সালামকে স্মরণ করবার দিন। মানুষের বৈচিত্র ও বিভিন্নতার সত্ত্বেও একদিন রক্ত, গোত্র, আভিজাত্য, গোষ্ঠি, ভূখ-, নৃতাত্ত্বিক কিংবা ভাষা বা সংস্কৃতিভিত্তিক জাতীয়তাবাদ অতিক্রম করে দুনিয়ার সকল মানুষ একত্ববাদের পতাকাতলে একদিন ঐক্যবদ্ধ হবে- মুসলমানগণ এই স্বপ্ন দেখেছিল বলে তার আবির্ভাব ও বিকাশ ঘটেছিল দ্রুত। হযরত ইবরাহীম (আ.) সেই স্বপ্নের দ্রষ্টা। শেষ নবী হযরত মুহাম্মাদ (সা.) স্বপ্ন দেখেছিলেন, হযরত ইবরাহীম (আ.)এর মধ্য দিয়ে সেই সময়ের সকল একত্ববাদী ধর্ম ঐক্যবদ্ধ হবে। তাই মুসলমানরা জেরুজালেমের মসজিদুল আকসার দিক থেকে হযরত ইবরাহীমের স্মৃতি বিজড়িত মক্কার বায়তুল্লাহর দিকে মহান আল্লাহর নির্দেশে ক্বেবলা ফিরিয়ে নিয়েছিলেন। হযরত ইবরাহীমের স্মরণ এ কারণেও গুরুত্তপূর্ণ।


হেফাজত যুগ্মমহাসচিব মাওলানা রুহী বলেন, ইসলামের এই গুরুত্বপূর্ণ চিন্তাকে এই দুই ফাসেক প্রকাশ্যে অবমাননা করেছে। এই দুইজনের বক্তব্য পবিত্র কুরআনের অবমাননার শামিল। কারণ দুইজনেরই প্রকারান্তরে পবিত্র কুরআনের আয়াত নিয়ে এই ধৃষ্টতাপূর্ণ আচরণ ক্ষমার অযোগ্য। তাদের এই অপরাধের কঠোর বিচার হতে হবে।


তিনি বলেন, আমরা সুইস দুতাবাসের কাছে জানতে চাই, ইসলামবিরোধী লেখা লেখার জন্যই কি অমি পিয়ালকে রাজনৈতিক এসাইলাম দিয়ে সুইস জনগণের করের টাকায় প্রতিপালন করা হচ্ছে? আমরা এটিএন বাংলার কাছেও জানতে চাই, তারা কি ইসলামবিদ্বেষ ছড়ানোর জন্য এসব সাংবাদিকদের চাকরি দিয়ে রেখেছে? এটিএন বাংলা কাছে জানতে চাই, তারা কি জ ই মামুনের বক্তব্যের দায় নেবে? তাদেরকে এটা স্পষ্ট করতে হবে।



তুরস্কের সঙ্গে সম্পর্ক আরো জোরদারের অঙ্গীকার পাক প্রধানমন্ত্রীর নূর হোসেন-তারেক সাঈদসহ ১৫ জনের মৃত্যুদণ্ড বহাল হেনারা’র চিকিৎসার্থে সাহায্যের হাত বাড়ালেন ‘‘ফ্রেন্ডস ফর লাইফ’’ নারী যাত্রীকে ধর্ষণের ইচ্ছে হয়েছিল, স্বীকারোক্তি উবের চালকের ষোড়শ সংশোধনীর রায় নিয়ে সরকার সীমালংঘন করছে : বাম মোর্চা আ.লীগের ভাব দেখে মনে হচ্ছে তারা এদেশের মালিক: ফখরুল ‘বাংলাদেশের উন্নয়নে জাপানের সহায়তা অব্যাহত থাকবে’ ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবস উপলক্ষে ভোলা জেলা আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা নওগাঁয় বিদ্যানিকেতন স্কুলের ত্রান বিতরণ খাগড়াছড়িতে রিড প্রকল্পের দু’দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা কোটালীপাড়ায় স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ: মামলা না করতে নিষেধ ঠাকুরগাঁওয়ে শিশু সাংবাদিকতা বিষয়ে ৩ দিনের প্রশিক্ষণের সমাপ্তি আফগানিস্তান থেকে সেনা সরাবে না ট্রাম্প জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে বিএনপি ‘৬ ধাপ পিছিয়ে সাংবাদিকরা’ বৃহস্পতিবারের মধ্যে প্রধান বিচারপতিকে পদত্যাগ করতে হবে: আইনজীবী পরিষদ জাল টাকা ছাপানো চক্রের ৭ জন গ্রেপ্তার ইসরাইলের দীর্ঘস্থায়ী বৈরী মনোভাবের নিন্দা হামাস ও ফাতাহ’র তামিমের জন্য আবারো সুখবর! যুবদলের প্রচার প্রকাশনায় নতুন নির্দেশনা আবারও শীর্ষে নাদাল ক্ষমতাসীন দল না চাইলে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়: সুজন সানলাইফ ইন্স্যুরেন্স স্পট মার্কেটে যাচ্ছে বুধবার গোপালগঞ্জে বিশেষ অভিযানে ৫৩ জন গ্রেফতার ৩ ঘণ্টায় ৪ কোম্পানি হল্টেড স্বপ্ন এখন লাশ ঘরে গোপালগঞ্জে ছুড়িকাঘাতে ইউপি সদস্যের মৃত্যু সামনে দিয়ে হাঁটার অভিযোগে স্ত্রীকে তালাক! স্যারোগেসির জন্য চেম্বারে আসতেই ধর্ষণের শিকার নারী শেয়ার কিনবেন ন্যাশনাল লাইফের উদ্যোক্তা পরিচালক জেনে নিন বজ্রপাত থেকে বাঁচার উপায়! জানাজার বিষয়ে বড় ছেলেকে যা বলে গিয়েছিলেন নায়করাজ ভারতে তিন তালাক স্থগিত মিডিয়ার যেসব মেয়েরা ড্রাগ নেয়, সবগুলোকে জেলের ভাত খাওয়ানো উচিত : অভিনেত্রী ফারিয়া শাহরিন আইন সচিবের নিয়োগ স্থগিত বারান্দায় এক যুগলের যৌনমিলন, উদ্দেশ্য এলাকাবাসীর নজরে পড়া… প্রথম ঘণ্টায় লেনদেন ২৬১ কোটি টাকা চীনের হুমকি উপেক্ষা করে কাছাকাছি ভারত-তাইওয়ান বিলাসবহুল গাড়িতে করে চুরি করতে যেত যে চোর ইসলামী ব্যাংকের উদ্যোক্তার শেয়ার বেচা সম্পন্ন ফের উত্তেজনা রুশ-মার্কিন সম্পর্কে সারাদেশেই বজ্রসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা পাবনায় দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৫ এসব আমাদের বিবেককেও স্পর্শ করে, একেবারে নীরব থাকতে পারি না: প্রধান বিচারপতি ২০৯০ সালের আগে এমন সূর্যগ্রহণ আর হবে না লভ্যাংশ পাঠিয়েছে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক রাজ্জাকের মৃত্যুতে যা বললেন তার প্রথম নায়িকা সুচন্দা সাভারে নৌকায় বর্জ্রপাত: নিহত ২, নিখোঁজ ১০ রাজধানীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত প্রেমিকের সাথে বের হলেই দিতে হয় সতীত্বের পরীক্ষা!