ঢাকা, শনিবার ১৮ই নভেম্বর ২০১৭ - 

জাতীয়তাবাদীদের মিডিয়া চিন্তা!

প্রাইমনিউজবিডি.কম
 বুধবার ১৫ই নভেম্বর ২০১৭

অলিউল্ল্যা নোমান : দুনিয়ার সব দেশে সংবাদপত্র ও গণমাধ্যমের ভুমকা হচ্ছে জনমত তৈরি করা। এই চিন্তা থেকেই গণমাধ্যমের সৃষ্টি। নিজেদের মতাদর্শ ও চিন্তাকে মানুষের সামনে তুলে ধরাই হচ্ছে যুগে যুগে গণমাধ্যমের মূল কাজ। পাশাপাশি দৈনন্দিন ঘটনা গুলোকে বস্তুনিষ্ঠ তথ্যের আলোকে পরিবেশন করা। সেই দিক থেকে বিবেচনা করলে বাংলাদেশের গণমাধ্যমে এখন একচ্ছত্র আধিপত্য হচ্ছে বাম ও আওয়ামীদের। দৈনিক ইনকিলাব (কখনো আওয়ামী, কখনো জাতীয়তবাদী ইসলামী মূল্যবোধ ধারন করা হয় যেখানে) দৈনিক নয়া দিগন্ত বাদ দিলে বাজারে আর কোন খবরে পাওয়া যাবে না ইসলামী মূল্যবোধ ও জাতীয়তবাদকে ধারণ করে।


অপরদিকে বাকী যত টেলিভিশন চ্যানেল ও খবরের কাগজ রয়েছে সবই আওয়ামী, বাম এবং ইন্ডিয়াপন্থি। তাদের এখানে নিয়োগের ক্ষেত্রে ব্লাড কালচার করে দেখা হয় শরীরে আওয়ামী ও বাম চিন্তার বাইরের কোন ব্লাড কানেকশন রয়েছে কিনা।


একটা উদাহরণ দিলেই পরিস্কার হয়ে যাবে। চার দলীয় জোট সরকারের আমলে অনুমোদন নেয় দেশ টেলিভিশন। অনুমোদনের সময় মালিকানায় ছিলেন বিএনপি’র সংসদ সদস্য ড. মুশফিকুর রহমান। চ্যানেল শুরু করার আগেই লাইসেন্সটা বিক্রি করলেন মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে। কামাই করে নিলেন কয়েক কোটি টাকা। তাও আবার বিক্রি করলেন আওয়ামী লীগের নেতা বর্তমান সংস্কৃতমন্ত্রী ইন্ডিয়ান সংস্কৃতির ধারক আসাদুজ্জামান নূরের কাছে। আমার জানামতে একজন জাতীয়তাবাদী ব্যবসায়ী সেটা কিনতে চেয়েছিলেন। তাঁর কাছে বিক্রি করা হয়নি। টেলিভিশন চ্যানেলটি বিক্রির জন্য তাঁর পছন্দের তালিকায় হল আওয়ামী বাম।


কেনার পর আসাদুজ্জামান নূর সেটা চালু করার উদ্যোগ নিলেন। আমার খুবই পরিচিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়–য়া এক ছেলে সেখানে চাকুরির জন্য গিয়েছিলেন। তার ইন্টারভিউর পর অপেক্ষায় ছিলেন নিয়োগপত্র পাবেন। ইন্টাভিউটা তাঁর বেশ ভাল হয়েছিল। তাই চাকরিটার প্রত্যাশা করেছিলেন ওই ছেলে। কিন্ত পরবর্তীতে জানানো হল তাঁর পিতা গ্রামে বিএনপি করেন। এজন্য তাঁকে এখানে চাকুরি দেওয়া সম্ভব হবে না!


অপরদিকে গতকালের আলোচনায় আমি বলেছিলাম দৈনিক আমার দেশ যখন তৈরি হয় ৭০শতাংশ নিয়োগ দেওয়া হয় আওয়ামী লীগ ও বাম খুজে খুজে। বাম ও আওয়ামী লীগারদের তুলনামূলক বেশি বেতন দিয়ে নিয়ে আসা হয়। বলা হতে পারে আমরা কিভাবে সেখানে নিয়োগ পেয়েছিলাম তাহলে?


আসলে সেটা আমারও প্রশ্ন। আমরা যে ক’জন ছিলাম অন্তত আওয়ামী নই, তাদের সবাইকে আনা হয়েছিল নিজ নিজ কাজের জায়গাতে সাফল্যের বিবেচনায়। এবং শুরু থেকেই আপদে বিপদে এই পত্রিকা ধরে রাখার জন্য অক্লান্ত নিরন্তর পরিশ্রমও আমরাই করে গেছি।


২০০৭ সালের জানুয়ারীতে জরুরী আইন জারি হয়। শুরু হয় জাতীয়তাবাদীদের দুর্দিন। দৈনিক আমার দেশ পত্রিকা চরম সঙ্কটের মুখোমুখি হয় তখন। কোম্পানীর চেয়ারম্যান আলহাজ্জ মোসাদ্দেক আলী ফালু সাহেব গ্রেফতার হন। তাঁর গ্রেফতারের পর থেকে পত্রিকাটির বেতন ভাতা বন্ধ হয়ে যায় বললেই চলে। এর মাঝে ২৪ ফেব্রুয়ারী ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের শিকার হয় আমার দেশ কার্যালয়। এ যেন মরার উপর খাড়ার ঘা। তখন বলা যায় আওয়ামী চিন্তার প্রায় সকলেই পত্রিকা ছেড়ে তাদের নিজেদের ঘরে ফিরে যায়। অর্থাৎ বিভিন্ন আওয়ামী মিডিয়া গুলোতে চাকুরি ফিরে পায় তারা। তখন খেয়ে না খেয়ে আমাদেরই এই পত্রিকা ধরে রাখতে হয়েছিল।


এক পর্যায়ে বর্তমান মালিক কতৃপক্ষের কাছে ২০০৮ সালের জুলাই মাসে বিক্রি করা হয় কোম্পানী। সেই প্রেক্ষিতে শ্রদ্ধেয় মাহমুদুর রহমান কোম্পানীর চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব গ্রহন করেন। পরবর্তীতে ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকের দায়িত্ব নেন তিনি।


যে কথাটি শুরুতে বলছিলাম। জাতীয়তাবাদী ও ইসলামী মূল্যবোধা যদি ২০ দলীয় জোটের রাজনৈতিক চিন্তা চেতনা হয়ে থাকে, তবে সেই চেতনা ধারন করার মত কোন গণমাধ্যম এখন বাজারে নেই। বিপরীত প্রচারণার জোয়ারে সেই আদর্শ এখন রাজনৈতিক জোট থেকে বিলুপ্তির পথে। ৯০শতাংশ মানুষের বিশ্বাস ইসলামী মূল্যবোধের কথা এখন ভয়ে অনেকে মুখে নেন না। বরং পারলে নিজেদের আওয়ামী লীগের চেয়েও বড় ধর্মনিরপেক্ষ আদর্শের প্রতীক হিসাবে উপস্থাপনের চেষ্টা করা হয়। এসবই হয়েছে মিডিয়ার এক রতফা প্রচারণার জোয়ারে।


সারা দুনিয়া নিয়ন্ত্রণ হয় এখন গণমাধ্যমের ভুমিকায়। সেটা টেলিভশিন চ্যানেল হোক, খবরের কাগজ হোক আর অনলাইন খবরের পোর্টাল হোক। আধুনিক এ জগতে জনমত গঠনে মিডিয়ার প্রভাব অস্বীকার করার কোন সুযোগ নেই। কিন্তু সুপরিকল্পিত ভাবে একটি মিডিয়াও গড়ে তোলা হয়নি রাজনৈতিক আদর্শের কথা বিবেচনায় নিয়ে। অপরদিকে আওয়ামী বামরা সুযোগ পেলেই মিডিয়ায় বিনিয়োগ করছে। সেটার সুফলও তারা ভোগ করছে। সরকারের এত ব্যর্থতাও দুর্নীতির মাঝেও সেই খবর পাত্তা পায় না। বরং সাফল্যটাই তুলে ধরা হয় খুজে খুজে। বলা যায় এই সরকারকে এপর্যন্ত টিকে থাকায় সর্বাত্মক সহযোগিতা করে যাচ্ছে সুপ্রিমকোর্ট এবং মিডিয়া।


উপরন্ত জাতীয়তাবাদী চিন্তা ও চেতনার ধারক সাংবাদিকদের এখন বেকার অবস্থায় দিন যাপন করতে হয়। শুধুমাত্র জাতীয়তাবাদী চিন্তার ধারক হওয়ার কারনে যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও অনেকে চাকুরি পায় না। অনাহারে অর্ধাহারে দিন সংসার চালাতে হয় তাদের। অনেকেই পেশা বদল করেছেন জীবনের তাগিদে।


প্রথম দিনের স্ট্যাটাসে আমি বলেছিলাম জাতীয়তাবাদী আদর্শের ধারক সাংবাদিক নেতা ও প্রবীন সাংবাদিক আমানউল্লাহ কবীর এখন কাজ করেন বিডিনিউজে। বিডিনিউজ হচ্ছে ১১০% আওয়ামী চিন্তার ফসল। সাংবাদিক নেতা শওকত মাহমুদ দীর্ঘদিন বেকার। সাংবাদিক নেতা এলাহিনেওয়াজ খানের বেকারত্বের বয়স ১০ বছর পার হয়ে গেছে। সরকার দৈনিক আমার দেশ জোর করে বন্ধ করে দেওয়ার পর থেকে দুই একজন ছাড়া প্রায় সবাই বেকার। জাতীয়তাবাদী চিন্তার যে ক’জন সাংবাদিক বিএসএস-এ চাকুরি পেয়েছিলেন চার দলীয় জোটের সময় তাদের অনেকেই সরকার পরিবর্তনের পর আর টিকতে পারেননি। চাকুরি ছেলে চলে আসতে হয়েছে, নতুবা অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে সেখান থেকে। এই বেকারদের খোজ কেউ কোনদিন নিয়েছেন কিনা আমার জানা নেই। তবে ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারনে চাকুরি হারানো সাংবাদিকদের কেউ খোজ নেননি। খোজ রাখার প্রয়োজনও মনে করেন না।


মিডিয়া বিমূখ বা মিডিয়া করার উদ্যোগ নিয়ে আওয়ামীদের তোষন করার খেসারত আরো দীর্ঘদিন দিতে হবে এ জাতিকে।লেখকের ফেইসবুক থেকে

Advertisement
বিয়ের দিন মেয়েরা যা চিন্তা করে বিশ্বসুন্দরীর মুকুট জিতলেন ভারতের মানসী চিল্লার মহাস্থানে বড় মাছের মেলা, বগুড়ায় নবান্ন উৎসব নন্দীগ্রামে ৮শ’ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৫ চাঁদা না পেয়ে একটি পরিবারের বাড়ি-ঘর ভাংচুর সহ নানা হয়রানির অভিযোগ নেত্রকোনা জেলা ছাত্রদলের সভাপতিসহ গ্রেফতার ৬ এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে আগুন দেয় ছাত্রলীগ: তদন্ত প্রতিবেদন ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক ৮ দিনের রিমান্ডে ক্যান্সার রুখতে বেশি বেশি সিগেরেট খেতে হবে! রাজশাহীকে উড়িয়ে ঢাকার দুর্দান্ত জয় ধর্মান্তরিত স্ত্রীকে ছুরিকাঘাতে হত্যার পর লাশ পুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ স্বামীর বিরুদ্ধে ঘরের কাজ করুন নিয়মিত বালিশ পাল্টাবেন কখন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে ঢাকা থেকে উদ্ধার বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের চেয়ে শ্রেষ্ঠ ভাষণ পৃথিবীতে আর কিছুই হতে পারে না: প্রধানমন্ত্রী যুবদলের সকল ইউনিটকে তারেক রহমানের ৫৩ তম জন্মদিন পালন করার নির্দেশ বাকৃবিতে ছাত্রদলের বিক্ষোভ তালতলীতে ১জন পরীক্ষার্থীর জন্য ১৬জন কর্মকর্তা-কর্মচারী জগন্নাথ হল ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা বিয়ে পাগল পাষন্ড স্বামী চার সন্তানের জননীকে পিটিয়ে জখম সংযোগ সড়কের অভাবে দু’টি বক্স কালভার্টের সুফল পাচ্ছেনা নাগরিকরা প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা শুরু রোববার জার্মানিকে দূরে ঠেলে ইসরাইলকে বন্ধু করছে সৌদি! 'নাগরিক সমাবেশের নামে রাজনৈতিক সমাবেশের আয়োজন করেছে সরকার' মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতা থেকে ছিটকে গেলেন জেসিয়া ফ্রান্সের উদ্দেশ্যে সৌদি আরব ত্যাগ করেছেন হারিরি গভীর সমুদ্রে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ সাবমেরিন! আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সভা বুধবার রাজনৈতিক অনিশ্চয়তায় বিদেশি বিনিয়োগ কমেছে: বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন সাপ্তাহিক রিটার্নে দর বেড়েছে ১১ খাতে মিয়ানমারের সেনা কর্মকর্তাদের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ছে সু চির ৫৩ তম জন্মদিনে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত তারেক রহমান মাঝ আকাশে হেলিকপ্টার-বিমান সংঘর্ষে নিহত ৪ ২১ নভেম্বর সেনানিবাসে যান চলাচলে বিধিনিষেধ রাবির অপহৃত শিক্ষার্থীর অবস্থান ঢাকায়, সঙ্গে সাবেক স্বামী রাজধানীতে ৮ ঘণ্টা করে বিদ্যুৎ থাকবে না আরো ৯ দিন তালা বাইরে নয়, ভেতর থেকে দেয়া হয়েছে : অপু রাতে ভাইস চেয়ারম্যানদের সঙ্গে খালেদা জিয়ার বৈঠক নাগরিক সমাবেশে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চ বিয়ে করলেন সেরেনা প্যারাডাইস পেপারসে বাংলাদেশি ১০ ব্যক্তি ও ১ প্রতিষ্ঠানের নাম যেভাবে দেশ চলছে তাতে অনেক ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে: ড. কামাল কেমন যাবে আপনার শনিবার দিনটি! মাঠ গরম রাখতে আসছে বিএনপির নতুন কর্মসূচী ১০ ভারতীয়সহ ৭৭ বিপিএল জুয়াড়ি আটক আ. লীগ মুখে যা বলে তা বিশ্বাস করে না: মওদুদ আহমদ বরিশালে মাইকে মেয়ে ধরা প্রচার করে চারজনকে গণধোলাই: মায়ের চুল কর্তন বরিশালে ২৫ মন জাটকা জব্দ বরিশালে ৪০ মন নিষিদ্ধ পলিথিন জব্দ বরিশালে তিন নারীকে পিটিয়ে আহত