সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৮, ০৫:৫৪:৪৫

মাথা নেই, চোখ নেই, এ কোন প্রাণী?

মাথা নেই, চোখ নেই, এ কোন প্রাণী?

ঢাকা : সমূদ্র উপকূলে পড়েছিল বিশাল এক জিনিস। হঠাৎ করে দেখলে মনে হবে কোনো প্রাণীর মরদেহ ভেসে উপকূলে এসে পড়েছে। স্থানীয় মানুষও তাই ধারণা করেছেন। কিন্তু কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারছেন না। কারণ আপাত দৃষ্টিতে একে পুরোদস্তুর প্রাণী বললেও, এর মাথা ও চোখ খুঁজে পাওয়া যায়নি!

রাশিয়ার পূর্ব উপকূলে বেরিং সাগরের উপকূলে সম্প্রতি দেখা মিলেছে ওই বস্তুর। তা থেকে গন্ধ বের হচ্ছে। একজন মানুষের ওজনের তিনগুণ হতে পারে ওই জিনিস।

সাইবেরিয়ান টাইমস জানিয়েছে, কামচাতকা উপদ্বীপের প্রত্যন্ত গ্রাম পাখাচিতে ওই বস্তুর দেখা মেলে। তবে এর ওজন এত বেশি যে এটাকে স্থানীয় বাসিন্দারা সরাতে পারছিল না। স্থানীয়রা কেউই এ বস্তুটি আগে দেখেনি।

বিষয়টি নিয়ে প্রথম গণমাধ্যমে লেখেন সোভেতলানা দিয়াদেনকো। তিনি বলেন, ‘সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো এই প্রাণীটি নলাকার পশমে আবৃত।এটা কি প্রাচীন প্রাণী হতে পারে? আশা করি, সমুদ্রের ছুঁড়ে দেওয়া এ প্রাণীটি নিয়ে একমাত্র বিজ্ঞানীরাই গবেষণা করে উত্তর দিতে পারবেন।’

তিনি মনে করছেন এটা পশম ওয়ালা অক্টোপাস।

দিয়ানকো বলেন, ‘এর পশম নলের মতো। যেন অনেকগুলো সরু নল মৃতদেহটি জড়িয়ে আছে। সত্যিই অদ্ভুত এ প্রাণী।’ দিয়াদেনকো আরো বলেন, ‘আমরা গুগলে সন্ধান করেছিলাম, কিন্তু খুঁজে পাইনি। খননকারী জরুরি হয়ে পড়েছে। কারণ বালি দ্বারা প্রাণীটির প্রায় অংশই ঢাকা পড়ে গেছে।’

অনেকে বলছেন, এটা গ্লোবস্টার। দেখতে বৃহদাকার অক্টোপাসের মতো। সামান্য হাড় আছে। তবে পশম থাকার কথা নয়। অনেকে বলছেন, তিমি বা শার্ক সমুদ্রের অনেক প্রাণীকে এমনভাবে আক্রমণ করে যে দেখতে অদ্ভুতুরে হয়ে যায়।

রাশিয়ার ইনস্টিটিউট অব ফিশারিজ অ্যান্ড ওশনগ্রাফির সমুদ্রবিজ্ঞানী সের্গেই করনেভ জানান, তিনি বিশ্বাস করেন কামচাতকার দৈত্যটি তিমির অংশবিশেষ হতে পারে। এটা তিমির অংশ, সম্পূর্ণ নয়।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি জাতিসংঘে যাওয়ায় সরকার আতঙ্কিত - ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের এ বক্তব্য সমর্থন করেন কি?