বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮, ০২:৪৩:২০

পুলিশের নির্দেশে স্থগিত বিএনপির অনশন

পুলিশের নির্দেশে স্থগিত বিএনপির অনশন

ঢাকা : অবশেষে পুলিশের নির্দেশে অনশন স্থগিত করল বিএনপি। আজ বেলা ১টা দিকে অনশন স্থগিতের ঘোষণা দেয় বিএনপি।

এর আগে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সাজার প্রতিবাদে আজ সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনশন কর্মসূচি পালন করে বিএনপি।

সকাল থেকেই খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে নানা স্লোগানে মূখরিত ছিলো জাতীয় প্রেসক্লাব। কিন্তু পুলিশের নির্দেশে ছয় ঘণ্টার কর্মসূচি ৩ ঘণ্টাতেই শেষ হয়ে যায়।

অনশন কর্মসূচিতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন অভিযোগ করে বলেন, আমাদের পূর্ব নির্ধারিত অনশন কর্মসূচি সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত হওয়ার কথা ছিল। প্রশাসনের চাপের কারণে আমরা শেষ করতে বাধ্য হচ্ছি।

এ সময় সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়ে খন্দকার মোশাররফ বলেন, খালেদা জিয়াকে বন্দি রেখে এ দেশে কোন নির্বাচন হবে না, হতে দেওয়া হবে না। বিএনপি চেয়ারপার্সনকে বন্দি করে সরকার আগুন নিয়ে খেলা শুরু করেছে। এ খেলা দেশের মুক্তিকামী জনগণ বন্ধ করে দিবে।

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেন, ভূয়া মামলায় দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রীকে আটক রাখা হয়েছে। আমরা এই রায় মানি না। আন্দোলনের মাধ্যমে বেগম জিয়াকে মুক্ত করে বিএনপি আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে বলেও ঘোষণা দেন তিনি।

বিএনপির আরেক স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, আমরা অনশন পালনের জন্য আমাদের দলীয় কার্যালয়, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিউট চেয়েছিলাম। আমাদেরকে দেওয়া হয়নি। তিনি বলেন, এই দেশের স্বাধীনতা আজ হুমকির মুখে। দেশের বিরুদ্ধে দেশী বিদেশী ষড়যন্ত্র চলছে। এটা আমাদেরকে রুখতে হবে।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি দুপুর আড়াইটায় রাজধানীর বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫ নং বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামান খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের কারাদণ্ড দেন।

রায়ে তারেক রহমানসহ মামলার বাকি পাঁচ আসামির প্রত্যেককে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। বাকি চার আসামি হলেন-সাবেক মুখ্যসচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, সাবেক সাংসদ ও ব্যবসায়ী কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ ও জিয়াউর রহমানের ভাগনে মমিনুর রহমান। এর মধ্যে পলাতক আছেন তারেক রহমান, কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও মমিনুর রহমান।

রায় ঘোষণার পর ওই দিনই কড়া নিরাপত্তায় খালেদা জিয়াকে ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়। বর্তমানে তিনি সেখানেই আছেন।

 

এই বিভাগের আরও খবর

  কোটা সংস্কার আন্দোলন নেত্রী সহ ছাত্রদল নেতাদের গ্রেফতারে ছাত্রদলের নিন্দা

  শুক্রবার ১৪ দলের শোক দিবসের আলোচনা সভা

  খালি মাঠে গোল দিতে চাই না : নাসিম

  বিএনপি-জামায়াতকে রাজনীতি থেকে নির্বাসনে পাঠাতে হবে: ইনু

  সংগ্রামে আমাদের জয়ী হতে হবে : ফখরুল

  সরকার বিরোধীরা এক মঞ্চে আসছে: আজ বি. চৌধুরীর বাসায় যুক্তফ্রন্টের বৈঠক

  সরকারকে বাধ্য করতে হবে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে :ফখরুল

  কারাগারে খালেদা জিয়ার সাথে দেখা করতে যাচ্ছেন বিএনপির নেতারা

  ‘সরকারবিরোধী কোনো আন্দোলন সফল হবে না’

  দাস বানানোর চেষ্টা করলে জনগণ ঐক্যবদ্ধভাবে শিক্ষা দেবে : ড. কামাল

  গণতন্ত্রের উসিলায় বিএনপি-জামায়াত অপশক্তিকে হালাল করা যায় না : ইনু

আজকের প্রশ্ন

খুলনা সিটি নির্বাচনের ভোটকে ‘প্রহসন’ বলেছেন বিএনপি ও বামপন্থিরা। আপনি কি একমত?