শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ২৭ আগস্ট, ২০১৮, ০৬:২১:১২

রাজনীতিতে পরিবর্তনের হাওয়া

রাজনীতিতে পরিবর্তনের হাওয়া

ঢাকা: আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে, ২১ আগস্ট মামলার রায়, রাজনৈতিক বৃহত্তর ঐক্যে তিন শর্ত এবং স্বেচ্ছাচারমুক্ত বাংলাদেশ গঠনে ভারসাম্যের রাজনীতি। এই তিন নিয়ে জনমনে তৈরি হয়েছে নানা প্রশ্ন। এদিকে, সেপ্টেম্বরের মধ্যেই ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়, প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বক্তব্যে বর্বরোচিত হামলায় খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমান সরাসরি জড়িত থাকার অভিযোগ, আরপিও সংশোধন করে, দ-িত ব্যক্তিদের দলীয় পদে না রাখার বিধান তৈরী, জাতীয় ঐক্যের ব্যাপারে বিএনপির আগ্রহ প্রকাশসহ তৃতীয় শক্তির এই উত্তানকে বাংলাদেশের রাজনীতিতে পরিবর্তনের হাওয়া বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেকরা।

তারা বলছেন, এই জোটে বিএনপি থাকলেও জোটের নেতৃত্ব বিএনপির হাতে থাকছে না। তবে, এ ধরনের মোর্চার ব্যাপারে লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক জিয়ার সায় নেই। তবে বেগম জিয়া ও তারেক জিয়াকে বাদ দিয়ে বিএনপির একটি অংশকে নিয়ে এরকম একটি জোট আওয়ামী লীগকে আগামী নির্বাচনে চ্যালেঞ্জ জানাতে পারে।

এ বিষয়ে বিএনপির নীতিনির্ধারকরা বলছেন, ২১ আগস্ট মামলা রায় সরকারের সুদূরপ্রসারী ষড়যন্ত্রের ইঙ্গিতবাহী। বিএনপিকে রাজনৈতিকভাবে বেকায়দায় ফেলতে সরকার যা-যা করার তাই করবে। তবে সেই প্রস্তুতি বিএনপিও নিয়ে রেখেছে। রায়ের পর প্রয়োজনে জিয়া পরিবারের কাউকে চেয়ারম্যান করে দল চালানো হবে কিংবা ওই পদ খালি রেখে দল চলবে। তাছাড়া ভিতরে ভিতরে প্রার্থী বাছাই ও নির্বাচনী ইশতেহারও তৈরি করছে দলটি। জোটের শরিক দলের শীর্ষ নেতাদের জন্যও বরাদ্দ রাখা হচ্ছে বেশ কয়েকটি আসনও।

শনিবার কারাগারে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাক্ষাত করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সাক্ষাতে আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে বৃহত্তর রাজনৈতিক জোট গঠন ও নির্বাচন বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা পেয়েছেন জানা যায়।

গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেন, দেশের বৃহত্তর ঐক্যের বিষয়ে আমি অনেক আশাবাদী। অতীতেও দেখেছি, দেশের সংকটকালে মানুষ একত্রিত হয়েছে। মানুষ সংকট থেকে উত্তরণের জন্য ঐক্যবদ্ধ হতে আগ্রহী। তিনি বলেন, আমার ৮০ বছর বয়সে প্রধানমন্ত্রী হতে চাই, এখন এসব কথা বলার কোনও মানে হয় না। আমি বিন্দুমাত্র এর মধ্যে নেই। আমি চাই সুষ্ঠু রাজনীতির বিকাশ হবে। আমি আগ্রহভরে দেখতে চাই, একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সুন্দর রাজনৈতিক নেতৃত্বের বিকাশ।

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সদস্য সচিব আ ব ম মোস্তফা আমিন বলেন, বিএনপির অতীত কর্মকা- প্রশ্নবিদ্ধ, তারা অনেক অপকর্ম করেছে। তাদের কোনো ঐক্যের ডাকে ড. কামাল হোসেন যাবেন না। তবে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে কোনো ঐক্য হলে সেখানে বিএনপি আসতে পারে।

বিকল্পধারা বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ও যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, একক দলীয় ক্ষমতা প্রয়োগে রাজনৈতিক কর্মীদের মধ্যে উচ্ছৃঙ্খলতা, রাজনৈতিক নেতা, সংসদ সদস্য ও মন্ত্রীদের মধ্যে দুর্নীতির প্রবণতা বাড়িয়ে দেয়। ফলে সরকার দেশের স্বার্থের বদলে দলীয় স্বার্থকে প্রধান্য দেয়। এ থেকে মুক্তির ভারসাম্যের রাজনীতি প্রতিষ্ঠা করা।আস

প্রতি মুহুর্তের খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিন

 

এই বিভাগের আরও খবর

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি জাতিসংঘে যাওয়ায় সরকার আতঙ্কিত - ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের এ বক্তব্য সমর্থন করেন কি?