সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ১১ মে, ২০১৮, ১১:০১:৩৯

বিশ্বের সফল ব্যক্তিরা ঘুমাতে যাওয়ার আগে কী করেন

বিশ্বের সফল ব্যক্তিরা ঘুমাতে যাওয়ার আগে কী করেন

পৃথিবীর সফল ব্যক্তিরা কী করেন বা কী করলে সফল হওয়া যায়, তা নিয়ে মানুষের আগ্রহের কমতি নেই। তাঁদের জীবনযাপন পদ্ধতি নিয়েও জানতে চায় মানুষ।

বিশ্বের ১৩ জন ব্যক্তি, যাঁরা নিজ নিজ ক্ষেত্রে সফলতার সাক্ষর রেখেছেন, ঘুমাতে যাওয়ার আগে তাঁরা ঠিক কী করেন, তাই নিয়ে টাইম ডটকম সাময়িকীতে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

এনটিভি অনলাইনের পাঠকদের জন্যে তা তুলে ধরা হলো :

১. বিল গেটস : মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা ও ধনকুবের বিল গেটস প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে এক ঘণ্টা বই পড়েন। প্রতি সপ্তাহে তিনি একটি নতুন বই সংগ্রহ করেন। তাঁর নিজস্ব একটি বইয়ের তালিকাও রয়েছে। তিনি মনে করেন, এই বইগুলো সকলের পড়া উচিত।

২. বারাক ওবামা : প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন বারাক ওবামা নিয়ম করে ঘুমাতে পারতেন না। তবে এখন তিনি নিয়মিত ঘুমান। গণমাধ্যম রোলিং স্টোনকে বারাক ওবামা জানান, ঘুমাতে যাওয়ার আগে তিনি একটি বই পড়ার চেষ্টা করেন। কখনো মেয়েদের সঙ্গে গল্প করেন। আর সময় পেলে প্রতিদিনকার একটি টেলিভিশন অনুষ্ঠান দেখেন।

৩. মিশেল ওবামা : বারাক ওবামার ঘুমাতে যেতে দেরি হলেও তাঁর আগেই ঘুমোতে যান স্ত্রী মিশেল ওবামা। রাত ১০টা বাজতে না বাজতেই বিছানায় চলে যান তিনি।

৪. মাইকেল ফেলপস : ফেলপস সমুদ্র উচ্চতা থেকে অনেক ওপরে একটি ঘরে ঘুমান, যেখানে অক্সিজেনের পরিমাণ কম থাকে। এতে তাঁর পেশিতে অক্সিজেন সরবরাহ বাড়ে, যা তাঁকে আরো কঠোর পরিশ্রম করতে সহায়তা করে।

৫. এলোন মাস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম বড় কোম্পানি টেসলা এবং স্পেসএক্সের প্রধান নির্বাহী এলোন মাস্ক প্রতিদিন আট বোতল ডায়েট কোক এবং দুই কাপ কফি পান করেন। এত পরিমাণ ক্যাফেইনের ফলে তাঁর মস্তিষ্ক অনেক বেশি উত্তেজিত হয়ে থাকে। ফলে তিনি ঘুমাতে যাওয়ার ছয় ঘণ্টা আগে থেকে এসব পান করা থেকে বিরত থাকেন।

৬. স্টিফেন কিং : ভৌতিক এবং বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনীর লেখক স্টিফেন কিংয়ের ঘুমে অনিয়মের অভ্যাস আছে। তিনি বলেন, ‘ঘুমানোর আগে আমি দাঁত ব্রাশ করি, আমার হাত ধুই। কেউ কি ঘুমানোর আগে হাত ধোয়? আমার জানা নেই।’

৭. মারায়া ক্যারি : সংগীতশিল্পী মারায়া ক্যারি বলেন, ‘আমি যে রকম চাই, তেমন করে গান গাইতে আমাকে ১৫ ঘণ্টা ঘুমাতে হয়।’ এই জন্য তাঁর শোবার ঘরে বেশ কয়েকটি আর্দ্রতা নিয়ন্ত্রণকারী (হিউমিডিফায়ার) যন্ত্র রয়েছে, যা তাঁর ঘরকে উষ্ণ রাখে। যেগুলো গলাব্যথার জন্য ভালো। তিনি বলেন, ‘মূলত, এটা একটা বাষ্পায়িত ঘরে ঘুমানোর মতো।’

৮ . কেনেথ চেনল : আমেরিকান এক্সপ্রসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কেনেথ প্রতি রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে পরবর্তী দিনের কার্যক্রমের একটা তালিকা তৈরি করেন। এমন তিনটি কাজের নাম লিখেন, যা তিনি পরের দিন শেষ করতে চান।

৯. অপেরা উইনফ্রে : একই সঙ্গে ব্যবসা, অভিনয়, নির্মাতা, উপস্থাপনা করে থাকেন অপেরা উইনফ্রে। এত কিছু করতে গিয়ে তাঁকে নিজের মনোযোগ ও চিন্তাকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে হয়। আর তাই তিনি দিনে দুবার মেডিটেশনে, অর্থাৎ গভীর ধ্যানে বসেন। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগেও তিনি মেডিটেশন করেন। এমনকি তাঁর নিজের মেডিটেশন অ্যাপও রয়েছে।

১০. শেরিল স্যান্ডবার্গ : ফেসবুক কর্মকর্তা শেরিল স্যান্ডবার্গ ঘুমোতে যাওয়ার আগে নিজের মোবাইল ফোনটি বন্ধ করে ঘুমান। যাতে তাঁর ঘুমে কোনো ব্যাঘাত না ঘটে। কিন্তু এটা খুবই বিপজ্জনক।

১১. আরিয়ানা হাফিংটন : গণমাধ্যম দ্য হাফিংটন পোস্টের সাবেক সহপ্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান সম্পাদক আরিয়ানা হাফিংটন সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, তিনি ঘুমের একটি নিয়ম মেনে চলবেন। অফিসে পড়ে গিয়ে বুকের হাড় ভেঙে যাওয়ার পরেই তিনি এ সিদ্ধান্ত নেন। ঘুমানোর আগে তিনি উষ্ণ গরম পানিতে গোসল করেন, ঘরের সব বৈদ্যুতিক যন্ত্র বন্ধ করে দেন এবং একটি বই পড়েন। আরিয়ানা প্রতিদিন সাত থেকে নয় ঘণ্টা ঘুমিয়ে থাকেন।

১২. গিনেথ প্যালট্রো : জীবনযাপন পদ্ধতিবিষয়ক ওয়েবসাইট ‘গুপে’র প্রতিষ্ঠাতা ও অভিনেত্রী গিনেথ প্যালট্রো ভালো ঘুমের জন্য পরিচ্ছন্ন খাবার খান। হ্যালো ম্যাগাজিনের দেওয়া তথ্যমতে, প্যালট্রো রাত ৮টা থেকে সকাল ৮টায় নাশতা খাওয়া পর্যন্ত না খেয়ে থাকেন। আর ঘুমাতে যাওয়ার আগে মাথা ও পায়ে ম্যাসাজ করান, যাতে ভালো ঘুম হয়।

১৩. এমিনেম : র‍্যাপ সংগীতশিল্পী এমিনেম রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে নিজের ঘরের সব বাতি বন্ধ করে দেন। তবে এতেই ক্ষান্ত হন না। নিজের জানালা রাঙতা দিয়ে মুড়িয়ে দেন, যাতে কোনো আলো প্রবেশ করতে না পারে।

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি জাতিসংঘে যাওয়ায় সরকার আতঙ্কিত - ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের এ বক্তব্য সমর্থন করেন কি?